জেনে নিন হাসির ৭টি মজার গুণের কথা

amitumi_laugh loud

হাসির বেশ মজার কিছু গুণ রয়েছে। হাসি শুধু সুখের প্রকাশ নয়, এর দ্বারা অসম্ভবকে জয় করা যায় এবং বৈপরিত্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করা যায়। একটি সাধারণ হাসি বাজে দিনকেও উজ্জ্বল করে দিতে পারে। এসব ছাড়াও হাসির গুণের বিষয়ে ৭টি দারুণ তথ্য জেনে নিন।

১. আবেগ বহন করে : সবচেয়ে বড় গুণটি হলো, হাসি আবেগ বহন করে। হাসিতে রয়েছে সুখ, আনন্দ এবং ভালোবাসা। এ ছাড়া আরো অনেক কারণে আমরা হাসি। অনেক আবেগের সঙ্গে মিশে যেতেও হাসি আমরা। রাগ, দুঃখ অথবা যন্ত্রণা মেনে নিতেও হাসি আমরা।

২. সময় থেমে যায় : যখন সত্যি সত্যি আন্তরিকভাবে হাসেন আপনি, তখন মুহূর্তেই সব বদলে যায় আপনার। মুখের সমস্ত পেশি ক্রিয়াশীল হয়ে ওঠে। চোখের চারদিকের পেশি জানিয়ে দেয় হাসিটি আন্তরিক, নাকি মেকি। যেকোনো সময়কে তৎক্ষণাত বদলে দেওয়া যায় হাসির মাধ্যমে। চেহারার গড়ন বদলে যায় এবং তারুণ্যের আভা ফুটে ওঠে ব্যক্তিত্বে।

৩. রাসায়নিক ক্রিয়া : হাসার কারণে মস্তিষ্ক থেকে এন্ডোরফিনস নামে এক ধরনের হরমোন নিঃসৃত হয়। এই হরমোন সুখের অনুভূতি দেয়। হাসি আসল বা মেকি যাই হোক না কেন, এই হরমোন ক্ষরণ হয়। ফলে অযথা হাসলেও মনটা ভালো হয়ে যাবে।

৪. দৈহিক স্বাস্থ্য : এন্ডোরফিনস হরমোন বিষনাশক হিসেবেও কাজ করে। এই হরমোন ক্ষরণের সঙ্গে সঙ্গে কর্টিসল নামের আরেক হরমোন কমে যায় যা কষ্টের অনুভূতি দেয়। তা ছাড়া হাসির ফলে বিপাক ক্রিয়া ত্বরান্বিত হয়। আর এসব কারণেই বলা হয়, হাসি সবচেয়ে কার্যকর ওষুধ।

৫. স্ট্রেস কমিয়ে দেয় : গভীরভাবে শ্বাস নিয়ে আবার ছেড়ে দেওয়া এবং সামান্য মুখের পেশির নড়াচড়ায় এন্ডোরফিনসের আগমন ঘটে। ফলে কর্টিসল দ্রুত ভেগে যায় এবং এতে মানসিক চাপ কমে যায়। তা ছাড়া শুধু হাসি হাসি মুখ করে গভীর শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমেও স্ট্রেস কমিয়ে ফেলা যায়।

৬. উন্নত জীবন : বাজে একটি দিন অতিবাহিত করে থাকলে এমন কিছু খুঁজে বের করুন যাতে আপনি হাসতে পারেন। আশপাশের সুন্দর সুন্দর জিনিসগুলো দেখুন যেখানে হাসির উপাদান রয়েছে। যত হাসবেন জীবনটাকে তত উপভোগ্য মনে হবে। উন্নত জীবন মানেই হাসি আনন্দে ভরপুর জীবন।

৭. সফলতার প্রতিফলন : হাসির মাধ্যমে প্রতিফলিত হয় আপনার আত্মবিশ্বাস, প্রতিযোগী মনোভাব এবং পেশাদারত্ব। তাই কর্মক্ষেত্রে হাসি আপনাকে সফলদের একজন করে ফুটিয়ে তুলতে পারে। তাই হাসির মাধ্যমে কর্টিসল হরমোনকে বিদায় দিয়ে শুধু স্ট্রেস কমানোই নয়, সফলতাকেও উপভোগ করতে পারেন।

সূত্র: কালেরকণ্ঠ

Check Also

করোনা ভাইরাস: টাকা, মোবাইল স্ক্রিন এবং স্টিলে ২৮ দিন পর্যন্ত থাকতে পারে, বলছে গবেষণা

করোনাভাইরাস ২৮ দিন পর্যন্ত ব্যাংক নোট, মোবাইল ফোনের স্ক্রিন এবং স্টেইনলেস স্টিলের মতো পৃষ্ঠগুলোতে থাকতে …