প্রেম মানে কি শুধুই হাত ধরাধরি!

প্রেম মানে কী? এর ব্যপ্তি কতদূর? তা সম্পূর্ণ নির্ভর করে প্রেমিক-প্রেমিকার উপর। তাদের সবকিছুই ব্যক্তি বিশেষের দৃষ্টিভঙ্গি, চিন্তাভাবনার উপর নির্ভরশীল।

প্রেম নিয়ে মানুষ কিন্তু খুব কনফিউজড। তবে এখনকার প্রজন্ম কিন্তু সম্পর্ক নিয়ে খুবই খোলােমলা। এর একটা ভালো দিকও আছে। কাউকে ভালো লাগছে, তাকে সরাসরি বলা যে, আমি তোমার সঙ্গে সম্পর্ক করতে চাই। এর মধ্যে কোনো প্রেমের ব্যাপার নেই, কোনো প্রতিশ্রুতি বা দায়বদ্ধতাও। বিয়ে, সংসার এ সবের গল্পই নেই! এটা একটা দৃষ্টিভঙ্গি। যদি দু’জন মানুষ সহমত হন, তা হলে এর মধ্যে আপত্তির তো কিছু নেই! এ ক্ষেত্রে একজন মানুষের কাছে সম্পর্ক শুধু অন্যান্য শারীরিক চাহিদার মতোই আর একটা চাহিদা। এমনটাই মনে করেন কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র।

সাম্প্রতিক এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, আজকাল নানা লেখাপত্র হচ্ছে। যে কোনো সম্পর্কের সঙ্গেই একটা প্রেম থাকতে হবে, ভালোবাসা থাকতে হবে। সেটাও ঠিক। কোনটা ঠিক সেটা আমি কে বলার? দুটো মানুষ সম্পর্ক করবে, নাকি আগে প্রেম-ভালোবাসার গল্প করবে সেটা তাদের ব্যাপার। যতক্ষণ না আপনারা পরস্পরকে শারীরিক বা মানসিকভাবে আঘাত করছেন, ততক্ষণ সেটা ঠিক আছে! কিন্তু বিরোধের জায়গাটা তৈরি হয় যখন একজনের কাছে ব্যাপারটা ঠিক, কিন্তু অন্যজনের কাছে নয়। যতক্ষণ কাউকে তার মতের বিরুদ্ধে কিছু একটা বুঝিয়ে এক্সপ্লয়েটেশনের গল্প না হয়, মিটু-র মতো কিছু না ঘটে, যদি দু’জনের মধ্যে পরিষ্কার একটা বোঝাপড়া থাকে, ততক্ষণ আমার মতে এই ব্যাপারটা যথেষ্টই স্বাস্থ্যকর। এবার তার মধ্যে যদি কারও প্রেম হয়ে যায়, তা হলে ভালো!

আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ায় ওপেন রিলেশনশিপ কথাটা খুব দেখা যায়। ওপেন রিলেশনশিপ মানে একই সঙ্গে একাধিক মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক রাখা এবং সেটা নিয়ে কোনও লুকোছাপা না করা! আমাদের সাহিত্যে, সিনেমায় এর অনেক উদাহরণ আছে। মনে রাখতে হবে, মানুষ কিন্তু পলিগ্যামাস বাই নেচার! বারবার একটা মানুষকে নিত্যনৈমিত্তিক জীবনে, শোওয়ার ঘরে বারবার দেখতে দেখতে একটা বোরডম আসে। তখন কিন্তু যে মেয়ে এতদিন বাড়ির বউ ছিল, সে কিন্তু একটা ব্যাকলেস ব্লাউজ পরে ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়ে লাইক গোনে, কমেন্ট দেখে! স্বামীর কাছে যে প্রশংসাটা সে পায় না, সেটা সে চায় অন্য লোকে করুক। অন্য জায়গা থেকে পাওয়ার চেষ্টা করে। অনেক বিবাহিত পুরুষও দেখেছি হোয়াটসঅ্যাপ করে নানা গল্প করতে চায় আমার সঙ্গে। আমি নিশ্চিত, তাদের বউরা সে কথা জানে না! আমরা তো সমাজে একটা হিপোক্রেসির মধ্যেই থাকি! তাই ওপেন রিলেশনশিপ যদি সত্যি সত্যি প্র্যাকটিস করা যায়, খুব ভালো!

শ্রীলেখা বলেন, ব্যক্তিগতভাবে আমি প্রেমে বিশ্বাস করি। তবে প্রেম মানেই যে হাত ধরাধরি করে শেষ পর্যন্ত একসঙ্গে থাকা, তা নয়। সেটা ক্ষণিকের প্রেমও হতে পারে। যতক্ষণ দুটো মানুষ পাশাপাশি আছে, তাদের মধ্যে একটা সততা থাকবে, একটা স্বচ্ছতা থাকবে, একে অপরের সুবিধা বুঝবে, সেটাই তো প্রেম!

Check Also

ঝগড়ায় ভালোবাসা বাড়ে!

ঝগড়াঝাঁটি কার ভালো লাগে বলুন? ঝগড়া হলেই মনে হয় এই বুঝি সম্পর্কের ইতি। কিন্তু গবেষকরা …