গরমে আরাম পেতে রকমারি লেগিংস

|রূপ-কেয়ার ডেস্ক|

একরঙা আর নিকষ কালো লেগিংসের যুগ শেষ। এসেছে ফুলেল, জ্যামিতিকসহ নানা মোটিফের লেগিংস। ধরনেও নানা রকম- থ্রি কোয়ার্টার, চুড়িদার আর লেস-ফিতা-বোতামের কারসাজি!

রকমারি লেগিংস বদলে গেছে সব। পলক না ফেলতেই। লেগিংসে স্টাইলিংয়ের নীতি-নিয়মের কথা বলছি। হলোটা কী! বলছি। রঙিলা আর নতুন ডিজাইনের লেগিংস নিলে আর চিন্তা নেই, জামা একরঙা একটা হলেই হলো। আর আগের নিয়ম ছিল, লেগিংসটা হবে একরঙা, জামাটা নিতে হতো বহু রঙা আর নানা নকশার। মানে এখন ঠিক উল্টো নিয়ম। ফ্রক, কামিজ কিংবা টপ নিয়ে এত না ভেবে সবাই ভাবছে লেগিংস নিয়ে। ওপরের জামাটা এক রঙের আর কোমর বা হাঁটু পর্যন্ত লম্বা- দুটো শর্ত পূরণ করতে পারলেই হলো। নতুন আসা লেগিংসগুলো থেকে বেছে নিতে গেলে জানতে হবে অনেক কিছুই।

এখন রঙিলা লেগিংস

শুরুর কথা মনে পড়বে নিশ্চয়ই। পরতেন একরঙা বা একদম নিকষ কালো একটা লেগিংস। তারপর যোগ হলো আরো কিছু রং- হলুদ, লাল, সবুজ, আকাশি, কমলা, মেরুন ইত্যাদি। আর এখন? লেগিংসে ভর করেছে রাজ্যের মোটিফ। ফুল ও জ্যামিতিক নকশায় ভরপুর। জনপ্রিয় হয়েই আছে ছাপা নকশার চংচঙে লেগিংস। আছে টাইডাই ও প্রাকৃতিক রঙেরও।

ফ্যাশন ডিজাইনার মাহিন খান বলেন, লেগিংসের পুরোটাই একটা ক্যানভাস। এগুলো পরলে মনে হয় পায়ে বুঝি কোনো শিল্পীর তুলির আঁচড় লেগেছে। এগুলোর সঙ্গে লম্বা কামিজ না নিয়ে হাঁটু বরাবর বা তার একটু উপরে পর্যন্ত টপ বা কুর্তা পরা যেতে পারে। মানিয়ে যাবে শার্টও। গরমে এমনিতেও লম্বা কামিজের হ্যাপা অনেক। লেগিংস রংচঙে আর ছাপা নকশার বলে সঙ্গে জামাটি বেছে নিতে হবে এক রঙা।

লেগিংসের রকম-সকম

বাজারে এসেছে নানা কাট ও কাজ করা লেগিংস। এগুলো তৈরি হয়েছে বিভিন্ন কাপড়ে। যেমন- নেট, সুতি, সিল্ক, জর্জেট, কটন ইত্যাদি। কাটের দিক থেকেও আছে বৈচিত্র্য। কিশোরীরা বেছে নিচ্ছে থ্রি কোয়ার্টার লেগিংস। আবার গোড়ালির একটু ওপরে শেষ প্রান্তে হালকা কুচি বা রঙিন পাথুরে বোতামসহ কাজ করা লেগিংসগুলো সব বয়সীর পছন্দ। লেইস আর প্যাচওয়ার্ক দিয়ে ডিজাইন করা লেগিংসের চলও দেখা যাচ্ছে। বড়রা আবার থ্রি কোয়ার্টার লেগিংসগুলো নিচ্ছে একবারেই ঘরোয়া পরিবেশের জন্য। এ ছাড়া চুড়িদারের মতো লং ধরনের লেগিংসও আছে। ড্রেসিডেলের পরিচালক ও ডিজাইনার মায়া রহমান বলেন, ‘যেকোনো কাজ ও নকশার রঙিন লেগিংস, যা পায়ের গোড়ালির একটু ওপরে উঠে থাকে, সেগুলো পরে যেকোনো পরিবেশে যে কেউ যেতে পারে। ফুল ও জ্যামিতিক নকশার লেগিংসের জুড়ি মেলা ভার। আর নিট ও সুতি কাপড়ের তৈরি লেগিংসগুলো আরামদায়ক।

মায়া আরো জানান, সাধারণত টিউনিক অর্থাৎ ফ্রক গোছের পোশাকের সঙ্গে লেগিংসটা মানায় বেশি। তবে যাদের দেহের গড়ন একটু ভারী, তারা লম্বা কামিজের সঙ্গে লেগিংস পরলেই ভালো। আর এসব লেগিংসের নকশার যেকোনো একটি রঙের সঙ্গে মিলিয়ে জামাটি বেছে নিতে পারলে ভালো দেখায়। মাহিন খান বলেন, ‘তরুণী বা কিশোরীদেরই ছাপার লেগিংসে বেশি মানায়। গড়ন ভারী হলে বড় নকশার লেগিংস এড়িয়ে চলাই ভালো।

বিভিন্ন আনুষঙ্গিক

মাহিন খান জানান, ফুলেল ও জ্যামিতিক নকশার যেকোনো লেগিংসের সঙ্গে সাদা, কালো, ধূসর, বাদামি, চকোলেট এই রংগুলো মানিয়ে যায়। অনায়াসেই এসব রঙের টপ বেছে নিতে পারেন। লেগিংসের সঙ্গে পায়ে ব্যালেরিনা সু বা ফ্লাট স্যান্ডেল দারুণ মানাবে। পার্টিতে পরতে পারেন হাইহিলও। তবে পেনসিল হিলের সঙ্গে একেবারেই মানাবে না। ওয়েজেস বা প্ল্যাটফর্ম হিল পরতে পারেন।

মায়া রহমান জানান, এই পোশাকের সঙ্গে সাজটাও হওয়া চাই মিলমতো। হাতে রঙিন কয়েকটি বালা, গলায় তার সঙ্গে মিলিয়ে মালা আর কানে বড় দুল পরতে পারেন, যা ঝুলে থাকবে। আর সঙ্গে নিতে পারেন বড় কোনো ব্যাগ।

কোথায় পাবেন

এ ধরনের লেগিংস পাবেন ফ্যাশন হাউজ ওটু, জেন্টল পার্ক, ক্যাটস আই, ইয়েলো, আরবান ট্রুথ, ড্রেসিডেল, এক্সট্যাসিসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজে। ফ্যাশন হাউজ ছাড়াও যেতে পারেন রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেটে। রাজধানীর বসুন্ধরা শপিং কমপ্লেক্স, নিউ মার্কেট, মৌচাক মার্কেট, ঢাকা কলেজের বিপরীতে বদরুদ্দোজা মার্কেট, টুইন টাওয়ার মার্কেট, প্লাস পয়েন্ট, অরভিস, পলওয়েল মার্কেট, বনানী সুপার মার্কেট, কর্ণফুলী মার্কেট, গুলিস্তান মার্কেট, গুলশান মার্কেট, নিউ এলিফ্যান্ট রোডের বিভিন্ন শোরুমে পছন্দসই পেয়ে যাবেন।

কেমন দাম

ডিজাইন, কাজ ও ধরনের ওপর নির্ভর করে দাম। প্রিন্টের লেগিংস পাবেন ৭০০ থেকে এক হাজার ৬০০ টাকার মধ্যে। এ ছাড়া একরঙা লেগিংস পাবেন ৩০০ থেকে ৬০০ টাকার মধ্যে। তবে ডিজাইনে ভারী ও হাতের কাজ করা লেগিংসের দাম পড়বে ৭০০ থেকে এক হাজার ৭০০ টাকা পর্যন্ত।

সতর্কতার সাথে খেয়াল করুন

* পায়ের সঙ্গে আঁটসাঁটভাবে লেগে থাকে বলে সব জায়গায় লেগিংস না পরাই ভালো।

* কেনাকাটা করতে গেলে বা ভিড় হয় এমন কোনো জায়গায় লেগিংস এড়িয়ে চলুন।

* লেগিংস ও টপস দুটোই রঙিন নিলে জবরজং দেখায়। তাই প্রিন্টের লেগিংসের সঙ্গে সব সময় বেছে নিন এক রঙা লম্বা শার্ট অথবা টপ, যা লম্বায় হাঁটু বা তার সামান্য একটু উপর পর্যন্ত হবে।

তথ্যসূত্র: কালেরকণ্ঠ

Check Also

নিয়মিত হাই হিল পরলে কী হয়?

হাই হিল ফ্যাশনপ্রেমীদের কাছে বেশ প্রিয়। আবার বিশ্বের নামীদামী মডেল-অভিনেত্রীদেরও হাই হিলেই অভ্যস্ত দেখা যায়। …