চোখের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার উপায়

 amitumi_eye makeup

চোখ ভিতরে ঢুকে থাকলে বা ঢুলুঢুলু হয়ে থাকলে ‍পুরো সৌন্দর্যেই সেটার একটা ছাপ পড়ে। তাই সুন্দর চেহারার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হলো সুন্দর চোখ।

চোখের ক্লান্তি খুব সহজে দূর করা সম্ভব নয়। তবে সাধারণ কিছু মেইকআপ কৌশলের সাহায্যে কিছুটা হলেও চোখের ক্লান্তভাব দূর করা সম্ভব।

একটি রূপচর্চা বিষয়ক ওয়েবসাইটের প্রতিবেদন থেকে সেই পদ্ধতিই জানানো হলো।

ঘন চোখের পাপড়ি

ভারি মেইকআপের ক্ষেত্রে নকল পাপড়ি ব্যবহার বেশ জনপ্রিয়। তাই বলে প্রতিদিনের সাজগোজে তো আর নকল পাপড়ি ব্যবহার করা যায় না। তবে চোখ আকর্ষণীয় করে তুলতে ঘন পাপড়ির তুলনা নেই।

চোখ আকর্ষণীয় করে তুলতে ঘন পাপড়ির তুলনা নেই। মডেল: মডেলঃ শারমিন রমা/ছবি: ই স্টুডিও। চোখ আকর্ষণীয় করে তুলতে ঘন পাপড়ির তুলনা নেই। মডেল: মডেলঃ শারমিন রমা/ছবি: ই স্টুডিও। সেক্ষেত্রে ‘ভল্যুমিলাইজিং এবং লেন্থননিং’ উপাদান বিশিষ্ট মাশকারা ব্যবহার করা যেতে পারে। এ ধরনের মাশকারা বিশেষ উপাদান ও ব্রাশ চোখের পাপড়ি ঘন করার পাশাপাশি পাপড়ির দৈর্ঘ্যও কিছুটা বাড়িয়ে তোলে।

চোখের নীচে কাজলের ব্যবহার

চোখের উপর তো সবাই কম বেশি আই লাইনার ব্যবহার করে থাকেন। চোখে কাজল হিসেবে কালো কাজল বেশি জনপ্রিয় হলেও বর্তমানে বিভিন্ন রংয়ের কাজলের জনপ্রিয়তাও কম নয়।

চোখের উপরে ও নীচে ব্যবহারের জন্য অনেকেই বেছে নিয়ে থাকেন রঙিন কাজল। চোখের নীচের অংশে ‘ওয়াটার লাইনে’ হালকা রংয়ের কাজল ব্যবহার করলে চোখ দেখতে বড় ও উজ্জ্বল লাগবে।

রঙিন স্মোকি আই

হাল ফ্যাশনে অন্যতম জনপ্রিয় চোখের মেইকআপ হলো স্মোকি আই। তবে যাদের চোখ ভিতরের দিকে ডেবে গেছে তারা কালো বা অ্যাশ স্মোকি আই একটু এড়িয়ে চলুন। কারণ এতে আরও বেশি ভিতরে মনে হতে পারে চোখ।

স্মোকি আই মেইকআপের জন্য অন্য যে কোনো উজ্জ্বল রং ব্যবহার করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে চোখের পাপড়ির কাছে একই রংয়ের গাঢ় শেইড এবং এরপর হালকা শেইড লাগিয়ে একটি ব্লেনডিং ব্রাশ দিয়ে ভালো করে শ্যাডোগুলো মিশিয়ে দিতে হবে।

চোখের নীচের পাতাতেও চিকন ব্রাশের সাহায্যে ওই শেইডের শ্যাডো লাগিয়ে নেওয়া যেতে পারে। এতে চোখ দেখতে উজ্জ্বল দেখাবে।

সূত্র: বিডিনিউজ২৪.কম

Check Also

ফর্সা ত্বক চান? মেনে চলুন এই ৩ নিয়ম

আবহাওয়ার খামখেয়ালি প্রভাব পড়ে আমাদের ত্বকেও। এই রোদ, বৃষ্টি, ধুলোবালি- সবকিছুর সঙ্গে তাল মেলাতে গিয়ে …