নিজের স্বামী সম্পর্কে যে কথাগুলো সবার সামনে কখনোই বলবেন না

amitumi_don't say about your husband

প্রেম করে বিয়ে হোক বা বাবা-মায়ের পছন্দে। যাকে বিয়ে করেছেন তিনি যেমনই হোক না কেন, তাকে নিয়েই কাটানো সম্ভব অদ্ভুত সুন্দর ও সুখের দাম্পত্য জীবন। কিন্তু অনেক সময় না বুঝেই স্ত্রী-রা স্বামী সম্পর্কে সবার সামনে এমন সব অভিযোগ দিতে থাকেন, যাতে স্বামী তো ভীষণ অপমানিত বোধ করেনই, আর সেটা সম্পর্কের জন্যেও ভালো কিছু বয়ে আনে না। আর এটি যখন বার বার ঘটতে থাকে, তখন সম্পর্কে এই সামান্য কিছু কথার কারণে সৃষ্ট ক্ষতই বড় আকার ধারণ করে ভেঙে যেতে পারেন সাজানো কোন সংসারও।

তাই জেনে নিন, স্বামী সম্পর্কে যে কথাগুলো সবার সামনে ভুলেও বলা যাবে না।

১। “ও আরেকটু লম্বা হলে ভাল লাগতো”

এটা আপনার মনে হতেই পারে।

কিন্তু সবার সামনে এ কথা বলে আসলে আপনার স্বামীকে ছোট করা ছাড়া কোন লাভ আদৌ হচ্ছে কি? আপনার স্বামী কি চাইলেই তার উচ্চতা বাড়াতে পারবেন? স্ত্রী হিসেবে স্বামীর খুঁত প্রকাশ নয়, লুকোনোই স্ত্রীর কর্তব্য। মনে রাখুন।

২। “ও একটুও রোমান্টিক না”

আপনার স্বামী যদি তথাকথিত সিনেমার নায়কের মতন রোমান্টিক নাও হয়ে থাকেন, তবুও এ কথাটি সবার সামনে বলা আর নিজের অসুখী দাম্পত্য নিয়ে হাহাকার করা একই কথা। এতে মানুষ আপনাকে নিয়ে করুণাই করবে। এর চেয়ে স্বামীর আশায় বসে থাকার চেয়ে নিজেই রোমান্টিক কিছু করার চেষ্টা করুন না। দুজন মিলেই তো একটা অসম্ভব রোমান্টিক সম্পর্ক গড়ে তোলা সম্ভব।

৩। “ওর ঐ মহিলা কলিগের সাথে যা খাতির!”

অফিসে নারী- পুরুষ সহকর্মী থাকবেই। তার মানে এই নয় যে, আপনার স্বামীর নারী কলিগ নিয়ে আপনই অন্যদের সামনে তাকে বাজে কথা বলবেন। এটি আপনার অসুন্দর মনেরই পরিচয় দেয়। একটু উদার হোন দয়া করে।

৪। “ও আমাকে সময় দেয় না, বাসার কোন কাজই করে না”

আপনার স্বামী পেশাগত কারণে ব্যস্ত থাকতেই পারেন। কিন্তু চেষ্টা করুন তার সাথে কথা বলে দুজনের সুবিধামতন সময়ে নিজেদের জন্যে একটু ভালো সময় কাটাবার ব্যবস্থা করার। আর বাসার কিছু কাজে সুন্দর করে সহায়তা চাইলে আপনার স্বামীর বারণ করার কথা নয়। তাই সবার সামনে অভিযোগের বদলে নিজেরা সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করুন।

৫। “ও তো মেয়েদের মত দেখতে”

আপনার স্বামী হয়তো সিনেমার নায়কদের মত ম্যানলি বা মাচোম্যান নয়। কিন্তু সবার সামনে তাকে মেয়েদের মত দেখতে বলাটা কিন্তু বেশ নোংরা পর্যায়ে চলে যায়। এটা করবেন না।

৬। “ওর এই বদভ্যাসটা এত্তো বিরক্তিকর!”

সবারই কোন না কোন মুদ্রাদোষ থাকে। আপনার স্বামীও হয়তো তার ব্যতিক্রম নন। তাই তার বদভ্যাস নিয়ে সবার সামনে কথা না বলে একান্তে এ নিয়ে কথা বলে তাকে শোধরাবার চেষ্টা করুন।

৭। “ও তো মায়ের আঁচল ধরে থাকে”

প্রতিটি সন্তানেরই তাদের মেয়ের প্রতি ভালোবাসা থাকে। তাই এ কথা বলা মানে আপনই আপনার স্বামীর ও তার মায়ের সম্পর্ক নিয়ে কথা বলছেন। এ ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। কোন ছেলেই কিন্তু এটি সহ্য করবে না।

৮। “ও আমাকে কিচ্ছু কিনে দেয় না”

যদি নাও কিনে দিয়ে থাকেন, এটা সবার সামনে বললেই কি উনি বদলে যাবেন? নাকি অন্যরা এসে আপনার প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনে দেবেন? এ ধরনের অভিযোগ অন্যদের সামনে আপনার লোভী মানসিকতাকেই তুলে ধরে।

৯। “বাচ্চারা তো ওকে কাছেই পায় না, ও এতোই ব্যস্ত”

এটি যদি হয়ে থাকে, তাহলে জেনে রাখুন, এতে আপনার স্বামীই সবচেয়ে বেশি কষ্ট পান। আপনার অভি্যোগ করার কোন দরকার নেই। সব বাবাই চান তার সন্তানের সাথে সবচেয়ে বেশি সময় কাটাতে। সুতরাং আপনার এ অভিযোগ আপনার স্বামীকে কেবল আহতই করে।

১০। “ও আমাকে অকারণে শুধু সন্দেহ করে”

স্বামী সন্দেহ করলে তাকেই খোলাখুলি জিজ্ঞেস করুন। সবার সামনে এ কথাটি বলা মানে সবার সন্দেহের তীর আপনার দিকেই নিয়ে আসা! কি এমন করেছেন আপনই যে আপনার স্বামী আপনাকে সন্দেহ করেন? এমনটাই ভাববেন কিন্তু সবাই! সুতরাং সাবধান!

সবার সামনে নিজের স্বামীকে নিয়ে অভিযোগ করে আপনি হয়তো আত্মতৃপ্তি পাচ্ছেন, কিন্তু এতে আপনার স্বামী অপমানিত হচ্ছেন নিঃসন্দেহে। আর এর সমাধান বাইরের কেউ এসে করে দিতে পারবে না। বরং আপনাদের দাম্পত্য জীবনের ভেতরের এসব কথা নিয়ে পেছনে পেছনে হাসাহাসিই হবে। সুতরাং এসব কথা বলা থেকে বিরত থাকুন। দাম্পত্য হোক সুন্দর!

সূত্র: প্রিয় লাইফ

Check Also

পরকীয়ার শিকার হচ্ছেন না তো আপনি?

আপনি ভাবছেন আপনার জীবনসঙ্গী খুবই ভালো মানুষ, তিনি আপনার সঙ্গে খুবই ভালো আচরণ করেন, তার …