হবু মায়ের স্বাস্থ্যসম্মত ও ফ্যাশনেবল পোশাক যেমন হওয়া জরুরী

rupcare_pregnancy fashion
গর্ভাবস্থায় মায়ের শারীরিক পরিবর্তনগুলোর জন্য দৈনন্দিন জীবনটাও হয়ে ওঠে একটু অন্য রকম। পোশাক নিয়েও তাই হবু মায়েদের পরতে হয় খানিকটা সমস্যায়। কেমন পোশাক পরে চলাফেরা করবেন তিনি, সে নিয়ে রয়েছে মতের ভিন্নতা। কেউ চান নিজেকে একটু আড়াল করে রাখতে, আবার আজকাল কেউ কেউ মনে করেন, প্রাকৃতিক এই বিষয়টি নিয়ে লুকোছাপার কিছু নেই।
ফ্যাশন হাউস সাদাকালোর ডিজাইনার ও চেয়ারপারসন তাহসিনা শাহীন জানালেন, তাঁর নিজের গর্ভাবস্থায় তিনি ভাবতেন কর্মজীবী মায়েদের জন্য স্বাচ্ছন্দ্যে চলাফেরা করার উপযোগী পোশাকের কথা। ২০১২ সালে মা দিবসের এক প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে মাতৃত্বকালীন পোশাক নিয়ে আসে সাদাকালো। তাঁর মতে, ঘরের ভেতরে ম্যাক্সি পরে থাকলেও বাইরে বেরোতে হলে আলাদা পোশাকের প্রয়োজন পড়ে। আর মাতৃত্বকালীন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যেতে হলেও পোশাকের ব্যাপারে বিপাকে পড়েন হবু মা। নিজেদের ফ্যাশনধারার সঙ্গে মানানসই পোশাক তৈরির প্রচেষ্টা থেকে এই উদ্যোগের সূত্রপাত।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের স্ত্রীরোগ ও প্রসূতিবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ফিরোজা ওয়াজেদ বলেন, ‘গর্ভকালীন সময়ে মায়েদের স্বাভাবিকভাবেই শ্বাসপ্রশ্বাসে কিছুটা সমস্যা হতে পারে। তবে তাঁর পোশাক খুব বেশি চাপা হলে বুকে ও পেটে চাপ পড়বে। এতে তাঁর অস্বস্তি বাড়বে। তাই একটু ঢিলেঢালা পোশাক পরাই ভালো। এ ছাড়া গর্ভের সন্তান যেন স্বাভাবিকভাবে নড়াচড়া করতে পারে, সে বিষয়টাও মাথায় রাখতে হবে।’
হবু মায়েদের জন্য ফিরোজা ওয়াজেদের আরও কিছু পরামর্শ—
– সব সময় পরিষ্কার কাপড় পরতে হবে।
– শাড়ি, সালোয়ার কামিজ বা অন্য যেকোনো পোশাকই পরা যাবে এ সময়। শুধু খেয়াল রাখতে হবে মায়ের স্বস্তির বিষয়টি।
– এ সময় সুতি কাপড়ের পোশাক পরাই সবচেয়ে ভালো। তবে চাইলে অন্যান্য কাপড়ের তৈরি পোশাকও পরতে পারেন। যদি কোনো ধরনের কাপড়ে অ্যালার্জি থাকে, তা অবশ্যই পরিহার করতে হবে।
– ঢোলা প্যান্ট আর পালাজ্জোও চলতে পারে এই সময়। তবে এসব পোশাকে যেন পেটে চাপ না লাগে, তা খেয়াল রাখতে হবে।
– পায়জামায় ইলাস্টিক বা ফিতা যেকোনটিই ব্যবহার করতে পারেন।
– খুব উঁচু জুতা না পরাই ভালো। একটু নিচু জুতা, যা পরে মা আরামে চলাফেরা করতে পারবেন, তেমনটা ব্যবহার করাই ভালো।
অভিনেত্রী সোহানা সাবা জানালেন, গর্ভকালীন সময়ে ঢিলেঢালা ও আরামদায়ক পোশাক পরতেন তিনি। তিনি যে মা হতে চলেছেন, তাঁকে দেখলে খুব একটা বোঝা যেত না বলে আলাদা করে ভাবতে হয়নি বিশেষ পোশাকের কথা। সেই সময়টাতে ক্যামেরার সামনে কাজও করেছেন তিনি। যেমন পোশাকে নিজের স্বাচ্ছন্দ্য, তেমনটাই পরতেন সেই সময়ে।
গর্ভাবস্থায় একজন নারী বিশেষ কোন ধরনের পোশাক পরছেন, এমন দৃশ্য এ দেশে আগে খুব একটা দেখা না গেলেও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলেছে হবু মায়েদের চিন্তাধারা। গর্ভাবস্থায় প্রাকৃতিকভাবেই হয়ে থাকা পরিবর্তনগুলোর সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি ফ্যাশনের ব্যাপারেও ভাবছেন তাঁরা।
কাগজের হস্তশিল্প তৈরির প্রতিষ্ঠান ‘কাগজামি’র স্বত্বাধিকারী মাকসুদা আজীজ। মা হতে চলেছেন তিনি। তিনি মনে করেন, মাতৃত্বকালীন পোশাক একটু ঢিলেঢালা হওয়া প্রয়োজন। আর ঘরের বাইরে গেলে মাথায় রাখা উচিত ফ্যাশনের দিকটিও। একটি মেয়ে মা হতে চলেছেন, তা বোঝা যাওয়াটাও দরকার। এতে অন্যরা তাঁর অসুবিধাগুলোর কথা বুঝতে পারবেন। যেসব ফ্যাশন হাউস মাতৃত্বকালীন পোশাক এনেছে, তারা ছাড়াও অন্য ফ্যাশন হাউসগুলো এমন উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারে। অনেকের পক্ষেই হয়তো অর্ডার দিয়ে এই সময়টার জন্য আলাদা পোশাক বানানো সম্ভব নয়, তাই সব সাইজেরই পোশাক থাকা উচিত বলে মনে করেন তিনি।
বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে পাওয়া যাচ্ছে মাতৃত্বকালীন পোশাক—
আড়ং: সম্প্রতি হবু মায়েদের জন্য বিশেষ পোশাক এনেছে আড়ং। বিশেষ আকৃতির কারণে হবু মা যেমন আরাম পাবেন এসব পোশাকে, তেমনি পোশাক আঁটোসাঁটো হয়ে থাকছে না বলে তাঁকে দেখতেও খারাপ লাগবে না। লিনেন কাপড়ে তৈরি টপ পরে মা চলাফেরা করতে পারবেন স্বচ্ছন্দে। বিভিন্ন রঙের এসব পোশাকে রয়েছে এমব্রয়ডারির কাজ।
খানিকটা লম্বা এসব টপ ছাড়াও রয়েছে সুতি কাপড়ে তৈরি ঢিলেঢালা প্যান্ট ও পালাজ্জো। ঘুমানোর সময় বা বিশ্রামের সময় পরে থাকার মতো লম্বা পোশাকও মিলবে এখানে।
সাদাকালো: ফ্যাশন হাউস সাদাকালোতে মায়েদের জন্য রয়েছে টপ ও ম্যাক্সি। টপের আকারেও রয়েছে ভিন্নতা। ব্লক আর স্ক্রিনপ্রিন্ট ছাড়াও নানান ধরনের কাজ রয়েছে পোশাকগুলোতে। সুতির পাশাপাশি এখানে মিলবে সিল্কের পোশাকও। সাদা আর কালো রঙের পোশাকগুলোতে রয়েছে বৈচিত্র্যময় নকশা, জানালেন তাহসিনা শাহীন।
ঝিঁঝিঁপোকা: ধানমন্ডির ঝিঁঝিঁপোকাতেও মিলবে মায়েদের জন্য পোশাক। নরম কাপড়ে তৈরি করা পোশাকগুলোর রং আর ডিজাইনেও রয়েছে বৈচিত্র্য।
দরদাম: মায়েদের জন্য বিশেষ টপের দাম ৬৫০-২৫০০ টাকা। বিশ্রামের বিশেষ পোশাকের দাম ৭৫০-১৩০০ টাকা। প্যান্ট ও পালাজ্জো মিলবে ৮০০-১৫০০ টাকায়। ম্যাক্সি পাবেন ৭৫০-১৫০০ টাকার মধ্যে।
সূত্র: প্রথমআলো

Check Also

নিয়মিত হাই হিল পরলে কী হয়?

হাই হিল ফ্যাশনপ্রেমীদের কাছে বেশ প্রিয়। আবার বিশ্বের নামীদামী মডেল-অভিনেত্রীদেরও হাই হিলেই অভ্যস্ত দেখা যায়। …