চাইনিজ রেস্টুরেন্টের মজাদার খাবার ‘ক্রিস্পি চিলি চিকেন’ তৈরী করুন ঘরেই

amitumi_crispi chilli chicken

সকলেই চাইনিজ খাবার বেশ পছন্দ করে খান। রেস্টুরেন্টে লাঞ্চ বা ডিনার করতে গেলে চাইনিজ খাবারই বেশি অর্ডার করা হয়। কিন্তু সব সময় তো চাইলেই রেস্টুরেন্টে গিয়ে খাওয়া সম্ভব হয় না। তাই বলে চাইনিজ খাবার খাবেন না, তা কি হয়? ভাবুন তো, ঘরেই যদি রেস্টুরেন্টের স্বাদ নেয়া যায় তাহলে কেমন হয়? তাহলে চলুন আজকে ঝটপট শিখে নেয়া যাক একেবারে চাইনিজ রেস্টুরেন্টের স্বাদের ‘ক্রিসপি চিলি চিকেন’ তৈরির রেসিপিটি।

উপকরণঃ

– ১ কেজি মুরগীর হাড় ছাড়া মাংস লম্বাটে ও চিকন করে কাটা
– ৩-৪ কাপ কর্ণফ্লাওয়ার
– আধা কাপ পানি
– ২ টি ডিম
– ১ টি বড় গাজর লম্বাটে কুচি করে কাটা
– ১ টি ক্যাপসিকাম লম্বাটে কুচি করে কাটা
– ৩ টি পেঁয়াজ কুচি
– ১ চা চামচ আদা কুচি
– ৫ কোয়া রসুন কুচি
– তেল পরিমাণ মতো
– ৩ টেবিল চামচ সয়া সস
– ৪ টেবিল চামচ ভিনেগার
– ৩ চা চামচ মরিচ কুচি
– চিনি আধা টেবিল চামচ

পদ্ধতিঃ

– একটি বাটিতে কর্ণফ্লাওয়ার নিয়ে এতে পানি মেশান ও নাড়তে থাকুন। ভালো করে নেড়ে নিন যাতে কর্ণফ্লাওয়ার পানিতে দলা না ধরে।
– এবার ডিম ভেঙে দিন কর্ণফ্লাওয়ারের মিশ্রণে এবং নাড়তে থাকুন ভালো করে। এভাবে নেড়ে পাতলা ব্যাটারের মতো তৈরি করে নিন।
– এরপর এতে কেটে ধুয়ে রাখা মুরগীর মাংস দিয়ে দিন। এবং ভালো করে নেড়ে মাংসের ওপর একটি ব্যাটারের প্রলেপ তৈরি করুন।
– একটি প্যানে ডুবো করে ভাজতে পারেন এমন ভাবে তেল দিন। বেশ খানিকটা গরম করবেন তেল, তবে দেখবেন যেন তেল থেকে ধোঁয়া না উঠে যায়।
– অল্প করে মাখানো মাংস দিয়ে ভালো করে নেড়ে নেড়ে ভাঁজতে থাকুন। দেখবেন মাংসের খণ্ডগুলো একটির সাথে অপরটি লেগে না থাকে। প্রতিটি আলাদা হবে। এভাবে মুচমুচে করে ভেজে নিন মাংসগুলো। সব একবারে দেবেন না এতে মুচমুচে হবে না।
– মাংস ভেজে একটি পেপার টাওয়েল বা কিচেন টিস্যুর উপর রাখুন যাতে তেল শুষে নেয়।
– এবার আরেকটি প্যানে মাত্র ১ টেবিল চামচ তেল দিয়ে গরম করুন। এতে গাজর, ক্যাপসিকাম, পেঁয়াজ ও আদা দিয়ে ভালো করে নাড়তে থাকুন।
– এরপর এতে বাকি সব উপকরণ দিয়ে নেড়ে মিশিয়ে নিন। সামান্য পানি দিয়ে রান্না করতে থাকুন। এরপর এতে মাংস দিয়ে দিন।
– লবণের স্বাদ দেখুন। পছন্দমতো স্বাদ হলে চুলা থেকে নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

সূত্র: প্রিয় লাইফ

Check Also

মজাদার রসুন ভর্তা তৈরির রেসিপি

গরম ভাতে সুস্বাদু ভর্তার কোনো পদ হলে আর কথা নেই! গপাগপ কখন যে সাবাড় হয়ে …