জেনে নিন পিল খাওয়া বন্ধ করলে শরীরে কি প্রভাব পরতে পারে

amitumi_what will happen if you stop pill

জন্মনিয়ন্ত্রণসহ অনেকসময় বিভিন্ন কারণে ডাক্তারের পরামর্শে মহিলারা পিল গ্রহণ করেন।

এই জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খাওয়া ছেড়ে দিলে নানান রকম প্রভাব শরীরে পড়ে। একটি নারী বিষয়ক ওয়েবসাইটের প্রতিবেদন অবলম্বনে সেসব প্রভাবের বিষয়গুলো তুলে ধরা হলো।

বেশি পিরিয়ড ও ব্যথা

অনেক মহিলাই পিএমএস থেকে বাঁচার জন্য পিল খেয়ে থাকেন। যদি খাওয়া ছেড়ে দেন তাহলে অধিক পিরিয়ড হওয়াসহ তলপেটে প্রদাহ বেড়ে যেতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাটের ইয়েল স্কুল অফ মেডিসিনের ধাত্রীবিদ্যা ও স্ত্রীরোগবিদ্যা বিভাগের ক্লিনিকাল অধ্যাপক মেরি জেইন বলেন, “পিলের প্রোজেস্টেরন এবং ইস্ট্রোজেনের পরিমাণ এমনভাবে থাকে যা, শরীরে ডিম্বাণু উৎপাদন কার্যপদ্ধতি বন্ধ রাখে। তবে এই কার্যপদ্ধতির জন্যই অনেক মেয়ে মাসিকের সময় তলপেটে ব্যথা অনুভব করেন।”

ওজন পরিবর্তন

‘ভি ইজ ফর ভাজাইনা’ গ্রন্থের সহলেখক অ্যালিসা ডোয়্যাক এম.ডি বলেন, “পিল খাওয়া শুরুর পর এক তৃতীয়াংশ মহিলার ওজন কমে, এক তৃতীয়াংশ মহিলার ওজন বৃদ্ধি পায় এবং এক তৃতীয়াংশ মহিলা একই রকম থাকেন।”

পিল গ্রহণের সময় বিভিন্ন কারণে ওজন বাড়তে পারে। অন্যতম কারণ হলো খাদ্যাভ্যাস বা শরীরে পানি ধারণ করা অথবা বাড়ন্ত বয়সে পিল খাওয়া শুরু করা। তবে পিল খাওয়া ছেড়ে দিলে ওজন কমার কারণ হচ্ছে পানি। শরীরে পানি ধারণের পরিমাণ কমে যায় বলে, মনে হয় ওজন কমে গেছে।

স্তনের আকার হ্রাস

পিল গ্রহণের সময় যদি স্তনের আকার বড় হয় তাহলে অন্যতম কারণ হচ্ছে পিলের প্রোজেস্টেরন ও ইস্ট্রোজেন উপাদান। তাই পিল ছাড়ার পর স্তন আবার আগের আকারে ফিরে যেতে পারে। যদিও এই প্রক্রিয়াটা খুব কম মহিলার ক্ষেত্রেই হয়। জানান ডা. ডোয়্যাক।

অতিরিক্ত সাদা স্রাব

ডা. ডোয়্যাক জানান, পিলের কাজ হচ্ছে শরীরে ডিম্বাণু তৈরি প্রক্রিয়া বন্ধ রাখা। তাই পিল খাওয়ার ফলে স্বাভাবিকভাবেই শরীরের গ্রন্থি থেকে রসক্ষরণ ঘটানোর প্রক্রিয়া কমে থাকে। আর পিল ছেড়ে দিলে এই প্রক্রিয়া কার্যকর হয়ে যায়, আর মাসের বিশেষ সময়ে বিশেষ জায়গায় আদ্রতার পরিমাণ বাড়ে।

যৌনাকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধি

যদিও খুব কম মহিলার ক্ষেত্রেই ব্যাপারটা ঘটে, তবে অনেকেই অভিযোগ করেন যে, পিল খাওয়া শুরু করার পর থেকে যৌনাকাঙ্ক্ষা কমে গেছে।

পিল যেহেতু ডিম্বাণু উৎপাদন ক্ষমতা বন্ধ রাখে সে কারণে এই আকাঙ্ক্ষা কম হতেও পারে। অনেকের যোনিতে শুষ্কভাব অনুভূত হতে পরে। তাই পিল খাওয়া ছেড়ে দিলে শরীরে আবার ডিম্বাণু উৎপাদন শুরু হওয়ার পাশাপাশি যৌনাকাঙ্ক্ষা বাড়তে পারে বলে জানান, ডা. ডোয়্যাক।

তবে এটা খুব কম সংখ্যাক মহিলার ক্ষেত্রেই ঘটে।

হতে পারে ফুষ্কুড়ি

পিল খাওয়া শুরু করার পর অনেকের ফুষ্কুড়ি বা ব্রন হওয়া বন্ধ হয়ে যায়। তবে পিল বন্ধ করে দিলে আবার সেগুলো ফিরে আসতে পারে।

এর কারণ হিসেবে ডা. ডোয়্যাক জানান, পিল খাওয়ার ফলে শরীরে টেসটোসটেরনের পরিমাণ কামিয়ে দেয় যা ত্বকের উপর কম প্রেভাব ফেলে। তবে পিল খাওয়া বন্ধ করে দিলে আবার ত্বকের কোষকলা বেশি ভাঙতে শুরু করে আর সেই থেকে ফুষ্কুড়ি বা ব্রন ফিরে আসে।

গর্ভবতী হওয়া

পিল খাওয়া বন্ধ করলে দ্রুত গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়ে। যদি অন্য কোনও নিরধক ব্যবহার করা না হয়।

ডা. ডোয়্যাক বলেন, “অবশ্য এটাই স্বাভাবিক। বন্যার হাত থেকে বাঁচতে বাঁধ দেওয়া হয়। বাঁধ খুলে দিলে পানির তোড় তো বেশি হবেই। এখানেও একই ব্যাপার ঘটে।”

সূত্র: বিডিনিউজ২৪.কম

Check Also

ঘুমের সময় মেয়েদের অন্তর্বাস পরা কি জরুরি?

ঘুমের সময় পোশাকটি কেমন হবে তা নিয়ে চিন্তিত থাকেন বেশিরভাগ নারী। কারণ আঁটসাঁট পোশাক পরলে …