Advertisements

একজন নারীর এই ৭টি গুণ থাকলে বেশিরভাগ পুরুষ তাকে “আদর্শ স্ত্রী” মনে করেন !

amitumi_good-wife একজন নারীর এই ৭টি গুণ থাকলে বেশিরভাগ পুরুষ তাকে "আদর্শ স্ত্রী" মনে করেন !

একজন পুরুষ নিজের ব্যক্তিগত জীবনে যেমনই হোক না কেন, সকলেরই মনের মাঝে আছেন একজন স্বপ্নের নারী। আর বিয়ে করার সময় এই স্বপ্নের নারীর সাথে মেলে এমন কাউকেই জীবনসঙ্গিনী করতে চান তাঁরা। বিশেষ করে এমন ৭টি ব্যাপার আছে, যা নিজের স্বপ্নের নারী বা স্ত্রীর মাঝে খুঁজে থাকেন পুরুষেরা। এই ৭টি গুণ কোন নারীর মাঝে থাকলে তাঁকেই আদর্শ স্ত্রী হিসাবে ধরে নেন পুরুষেরা। কী সেই গুণগুলো? চলুন, জেনে নিই।

চরিত্র

পুরুষ নিজে যদি ঘর চরিত্রহীনও হন, তবুও তিনি মনে মনে চান একজন চরিত্রবান স্ত্রী। পুরুষের কাছে নারীদের চরিত্র ভালো হওয়াটা বিশাল একটি ব্যাপার এবং সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ। পুরুষেরা এটা নিশ্চিত হতে চান যে স্ত্রী কখনো তাঁকে ধোঁকা দেবেন না, তিনি যাই করুন না কেন। এই জন্যই চরিত্রের ব্যাপারে অধিক জোর দেন।

সম্মান দেয়া ও নেয়ার ক্ষমতা

নিজের স্ত্রীর কাছ হতে উপযুক্ত সম্মান আশা করেন যে কোন পুরুষ। সাথে এটাও আশা করেন যে তাঁর স্ত্রী এমন ব্যক্তিত্বের অধিকারী হবেন যেন সকলেই তাঁকে ভালোবাসা ও সম্মান করে। স্বামীরা এতে গর্ব অনুভব করেন।

স্নেহশীলতা

রুক্ষ্ম স্বভাবের নারীকে কোন পুরুষই পছন্দ করেন না। স্নেহশীল, মমতাময়ী একজন নারীকেই স্ত্রী হিসাবে পেতে চান পুরুষেরা। কেবল নিজের সন্তানের কথা ভেবে নয়, নিজের কথা ভেবেও।

Advertisements

বুদ্ধিমত্তা

বেশিরভাগ পুরুষই কিন্তু বুদ্ধিমান নারী পছন্দ করেন। স্ত্রী সময় কাটানোর কোন সঙ্গী নন, বরং স্ত্রী হচ্ছে সেই মানুষ যার সাথে নিজের জীবন ভাগ করতে হয় প্রত্যেক পুরুষকে। আর সেক্ষেত্রে একজন বুদ্ধিমতী স্ত্রী পুরুষের অনেক সমস্যাই লাঘম করে দেন, অনেক দায়িত্বই ভাগ করে নিতে পারেন। আর সচেতন পুরুষেরা এটা খুব পছন্দ করেন।

আত্মবিশ্বাস

একজন আত্মবিশ্বাসী মানুষ কেবল বাইরে বা কর্মক্ষেত্রে নয়, নিজের ঘরেও সমান তালে সামলে চলতে পারেন। একজন আত্মবিশ্বাসী নারী নিজের দাম্পত্য, শ্বশুরবাড়ি, সন্তান, ক্যারিয়ার সবকিছুকে সুন্দর মত সামাল দিতে পারে। আর এটা পুরুষেরা কামনা করেন মনে মনে যেন স্ত্রী একাই সব সামলে নিতে পারেন।

উচ্চাকাঙ্ক্ষা

উচ্চাকাঙ্ক্ষা মানে কেবল ক্যারিয়ারে ভালো করা নয়। নিজের ক্যারিয়ার তো আছেই, সেই সাথে একজন উচ্চাকাঙ্ক্ষী নারী নিজের সংসারের ভবিষ্যৎ ভালো করার জন্য চেষ্টা করেন। একই সাথে মা হবার পর সন্তানদের জন্যও তিনি বড় স্বপ্ন দেখেন ও বড় কিছু করার চেষ্টা করেন। তিনি চেষ্টা করে স্বামী সহ পরিবারের সবাইকেই সফল মানুষে রূপান্তর করতে।

বিনয়ী ও ভদ্র আচরণ

বদমেজাজি, বাজে ভাষায় কথা বলা, খিটখিটে স্বভাবের নারীকে কোন পুরুষই পছন্দ করে না। এমনকি একজন খিটখিটে স্বভাবের পুরুষও স্ত্রী হিসাবে একটি মিষ্টি মেয়েকেই কামনা করেন মনে মনে।

সূত্র-এলিট ডেইলি

Advertisements

Check Also

হতাশা দূর করবে যেসব খাবার

বাইরে থেকে দেখে যতই সুখী আর সমৃদ্ধ মনে হোক না কেন, ভেতরে ভেতরে নিঃস্ব হয়ে …