হৃদয় স্পর্শ করা একটি বিজ্ঞাপন

amitumi_idlc adv

গল্পটা ছিল প্রেমের। গাড়ির প্রতি আবার নারীর প্রতি। ছেলে মেয়েটাকে যেদিন থেকে ভালোবাসে ঠিক সেইদিন থেকেই হয়তো নিজের মোটরবাইকটাকেও ভালোবাসে। বলা যায় একদম গাঢ় ভালোবাসা। সেই বাইক আর ভালোবাসার মানুষটিকে পেছনে বসিয়ে নগরীর এ মাথা ও মাথা চষে বেড়ায়। কত স্মৃতি, কত কথা। ভালোবাসার মানুষটির সাথে অজস্র স্মৃতি জড়িয়ে আছে সেই আদরের বাইকটিতেও। কেন না এই বাইকের স্পর্শেই মিশে আছে ভালোবাসার ভালোলাগার মানুষটি। বন্ধুদের আড্ডা, প্রথম চাকরির ইন্টারভিউ, আরো কতকিছু।

একদিন বিয়ে করেন সেই তরুণ-তরুণী। ছোট্ট একটা সংসার। সেই সংসারেরও সঙ্গী সেই বাইক। কেন না, সেটাতেই শত ঝড় বৃষ্টিতে প্রিয় মানুষটিকে অফিসে নিয়ে যাওয়া নিয়ে আসা। একদিন ঝড়ের কবলে অফিস থেকে প্রিয়তমা স্ত্রীকে নিয়ে আসতে দেরি হয়। সেই দুর্যোগের সন্ধ্যায় সামনে দিয়ে চলে যায় কলিগের গাড়ি অথচ তাকে সে মোটরবাইকেই স্ত্রীকে নিয়ে ফিরতে হয়। প্রেমিকা থেকে স্ত্রী, এখইন শুধুই দুজন দুজনার। সামান্যতেই অভিমান তো বাড়বেই।

একদিন বাইক পানি দিয়ে পরিষ্কার করছিলেন স্বামী। অন্তসত্ত্বা স্ত্রী বারান্দায় এসে তার চেয়ে বাইকের প্রতি তার মমত্ববোধ দেখে অভিমানে ঘরে চলে যান। কিন্তু বাইকের চেয়ে যে মমত্ববোধ স্ত্রীর প্রতি বেশি, অনাগত সন্তানের প্রতি বেশি সেটা বোঝা যাবে বিজ্ঞাপনের একেবারেই শেষ পর্যায়ে। কেন না, আদরের বাইকটি পরিষ্কার করা হচ্ছিল বিক্রি করে দেওয়ার জন্য আর তার বদলে লোনে একটা গাড়ি কেনার জন্যই। যাতে করে হাসপাতাল থেকে সদ্যোজাত শিশুসহ প্রিয়তমা স্ত্রীকে সারপ্রাইজড করে বাসায় নিয়ে ফেরেন।

বিজ্ঞাপনটি একটি কার লোনের। আইডিএলসি ফাইন্যান্সের। এতে মুখ্য চরিত্রে মডেল হয়েছেন কারার মাহমুদ। এই যুবক হঠাৎ করে করপোরেট দুনিয়া ছেড়ে শোবিজে পা দিয়ে চমকে দিয়েছেন সবাইকে। এই টিভি বিজ্ঞাপনে তাঁর সহ-মডেল হয়েছেন, হানিয়াম মারিয়া রাকা।

ভিডিওতে দেখুন…

সূত্র: কালেরকণ্ঠ

Check Also

মিলার স্বামীকে খোলামেলা ছবি পাঠাতেন নওশীন

অশ্রুসিক্ত চোখে মিলা আজ সাংবাদিকদের সামনে উপস্থিত হলেন। সেখানে তিনি তার জীবনের এক অধ্যায় তুলে …