ডায়েট করতে চাচ্ছেন? জেনে নিন কম খাওয়ার ১০টি কৌশল

amitumi_diet tips

সারাদিন না খেয়ে থেকে কি ওজন কমানো সম্ভব হয়। মূলত ওজন কমানোর মূল হল প্রোটিনকে নিয়ন্ত্রণ করা। ঠিকমত প্রোটিন নিয়ন্ত্রণ করা বা ক্যালোরিকে পোড়ানো গেলে ওজন আপনার আয়ত্তে থাকবে। ‘দ্যা প্রোটিন টেলার প্ল্যান :দ্যা নো ডায়েট রিয়েলিটি গাইড টু ইটিং, চিটিং, লুজ ওয়েট পারমানেন্টলি’ বইয়ের লেখক ডক্টর লাইসা ইয়ং জানান- প্রোটিন নিয়ন্ত্রণ করার মানে এই নয়, আপনি সবসময় প্রোটিন জাতীয় খাবার বাদ দেবেন বা অল্প খাবেন। রুচি নিয়ন্ত্রণ করেও আপনি আপনার প্রোটিন নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন’।

জেনে নিন এমন কিছু কৌশল যা ডায়েট চলাকালীন আপনাকে কম খেতে সাহায্য করবে।

১। প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন
আপনি যত বেশি পানি পান করবেন তত কম খাবেন। প্রতিবার খাবারের আগে এক গ্লাস পানি পান করুন। খাবার কম খেয়েও আপনার পেট ভরা থাকবে। খাওয়ার মাঝে পানি পান করেও আপনি আপনার রুচি কমাতে পারেন।

২। চিনি বা চিনি জাতীয় খাদ্য কম খান
যত বেশি চিনি আপনি খাবেন তত বেশি ক্ষুধা অনুভব হবে। চিনি আপনার রক্তে শর্করার পরিমাণ বাড়িয়ে দেয় এবং এটি আপনার ক্ষুধা বাড়িয়ে দেয়। চিনি বা চিনি জাতীয় খাবার যেমন চকলেট, মিমি এইসব খাবার খাওয়া বাদ দিন। আপনার খাওয়ার আগ্রহ কমে যাবে অনেকখানি।

৩। প্রচুর সবজি খান
বেশি করে সবজি খান। খাওয়ার শুরুটা করেন সবজি দিয়ে। এতে ক্যালরি জাতীয় খাবারকে এড়িয়ে যাওয়া সহজ হবে। মাংস জাতীয় খাবার খাওয়ার আগে সবজির দিয়ে খাওয়া শুরু করুন। পরে মাংস দিয়ে খান। এটি মুখের স্বাদ রক্ষা করার পাশাপাশি ওজনও ঠিক রাখবে।

৪। আস্তে আস্তে খান
দ্রুত খেলে আপনি বেশি পরিমাণে খাওয়া হয়। পেটে খাবার হজম হওয়ার আগে আবার খাওয়া পরার কারনে পেট খাবার হজম করার সময় পায় না। যা পরবর্তী সময়ে ক্ষুধার উদ্ভব করে থাকে। কমপক্ষে ২০ মিনিট সময় নিন খাবার শেষ করার জন্য।

৫। সব খাবার একবারে নয়
আপনি যখন ব্যাগভর্তি চিপস খেতে বসেন তখন কি জানেন কতটুকু খাচ্ছেন? জানেন না। এক জরিপে গবেষকরা জানিয়েছেন, কখনোই ব্যাগের সম্পূর্ণ খাবার খাওয়া উচিত নয়। ১০ শতাংশ রেখে দিন পরে খাওয়ার জন্য।

৬। পেটভরে সকালের নাস্তা করুন
সকালে খালি পেটে থাকবেন না। পেটভরে নাস্তা করুন। সকালের খালি পেট আপনার রক্ত শর্করার পরিমাণ বাড়িয়ে দেয় যা আপনাকে ক্ষুধার অনুভব দিয়ে থাকে।

৭। ছোট থালায় খান
থালার আকৃতি আপনার খাওয়াকে নিয়ন্ত্রণ করবে। চেষ্টা করুন ছোট থালায় খাবার খাওয়ার। গবেষণায় দেখা গেছে ছোট থালায় খাবার বাড়লে বেশি মনে হয় এবং আসলে কম খাওয়া হয়।

৮। খাওয়ার সময় টেলিভিশন দেখা থেকে বিরত থাকুন
খাবার যখন খাবেন তখন খাবারেই মন দিন। টেলিভিশন বন্ধ রাখুন এবং এমনকি আপনার স্মার্টফোনটিকেও দূরে রাখুন। আপনি যদি অফিসে থাকেন তো ডেস্কে খাবার খাবেন না। আপনি যদি টেলিভিশন খুলে, স্মার্টফোন ব্যবহার করতে করতে অথবা ডেস্কে কম্পিউটারে খেলতে খেলতে যদি খাবার খান তাহলে বেখেয়ালে বেশি খাওয়া হয়ে যায়।

৯। লম্বা গ্লাসে পানি পান করুন
লম্বা গ্লাসে ককটেল জাতীয় পানীয় পান করুন। পানিটি ধীরে ধীরে পান করুন। নিজেকে ফাঁকি দিন এবং ভাবুন অনেক পানীয় খাচ্ছেন। লম্বা গ্লাসে তুলনামুলভাবে কম পানি ধরে আর আপনি আরও কম পানি পান করেন।

১০। বুফেতে গেলে আগে খাবার দেখে নিন
বুফেতে গেলে সাধারণত মানুষজন প্রথমে ভারি খাবারগুলো দিয়ে প্লেট ভরে ফেলে। ফলে লো ফ্যাটের খাবারগুলো আর খাওয়া হয় না। বুফেতে গেলে আগে ঘুরে দেখেন কী আছে এবং লো ক্যালরির খাবার আগে খাওয়ার চেষ্টা করুন।

সূত্র: www.kitchendaily.com

Check Also

ঘুমের সময় মেয়েদের অন্তর্বাস পরা কি জরুরি?

ঘুমের সময় পোশাকটি কেমন হবে তা নিয়ে চিন্তিত থাকেন বেশিরভাগ নারী। কারণ আঁটসাঁট পোশাক পরলে …