বিকালের নাস্তায় চায়ের টেবিলে মানানসই মুচমুচে পিঁয়াজের পাকোড়া

amitumi_onion pakora

বিকেলের নাস্তা টেবিল হোক বা অতিথি আপ্যায়নের আয়োজনে, চা জিনিসটি এখনো বাঙালির জীবনের অতি ঘনিষ্ঠ এক অধ্যায়। এই চায়ের সাথে টা না হলে কি চলে? বরং একটু ভাজাভুজি হলে কিন্তু চায়ের সাথে জমে দারুণ! চলুন, আজ জেনে নিই ইসরাত জাহান বীথির পিঁয়াজের পাকোড়ার সহজ রেসিপি।

উপকরণ

পিঁয়াজ কুচি – ১ কাপ
বেসন -১ কাপ
চালের গুঁড়ো -২ টেবিল চামচ
কাচামরিচ কুচি-৩-৪ টি
ধনে পাতা কুচি -২ টেবিল চামচ
কারি পাতা কুচি -১ চা চামচ (ইচ্ছা )
আদা মিহি কুচি -দেড় চা চামচ
রসুন বাটা – ১ চা চামচ
শুকনা মরিচ টালা গুঁড়ো – ১ চা চামচ (কম বেশি দেয়া যাবে )
আস্ত ধনিয়া টালা-১ চা চামচ
আস্ত জিরা টালা -১ চা চামচ
রাধুনি -আধা চা চামচ
লবণ – স্বাদমত
খাবার সোডা /বেকিং সোডা – ১ চামচ এর চার ভাগের এক ভাগ (সিকি চা চামচ )
তেল – ভাজার জন্য
পানি পরিমাণমত

প্রণালী –

-প্রথমে টেলে নেয়া ধনিয়া, জিরাকে গুঁড়ো করে নিতে হবে। একদম পাউডার করা যাবে না,একটু আধা ভাঙ্গা করে নিতে হবে।
-একটা বাটিতে পিঁয়াজ কুচি, কাঁচামরিচ কুচি,ধনে পাতা কুচি,কারিপাতা কুচি,আদা কুচি ,রসুন বাটা ও পরিমানণ মত লবন দিয়ে একটু কচলে নিতে হবে। তারপর তেল ও পানি ছাড়া বাকি সব উপকরণ দিতে হবে।
-এখন অল্প অল্প করে পানি দিয়ে একদম আঠালো মিশ্রন করতে হবে। ডালের বড়ার জন্য যেমন আঠালো মিশ্রন করি ,ঠিক সেই রকম হবে। কড়াইতে একটু বেশি করে তেল দিয়ে গরম করতে হবে। তেল গরম হলে,ওই গরম তেল থেকে ১ টেবিল চামচ গরম তেল পাকোড়ার মিশ্রনে দিয়ে মাখিয়ে নিতে হবে।
-এখন চুলার আঁচ কিছুটা কমিয়ে ,হাত দিয়ে ছোট ছোট পাকোড়া তেলে ছেড়ে মাঝারি আঁচে একটু সময় নিয়ে সোনালী করে ভেজে নামাতে হবে।
-সব পাকোড়া ভাজা হলে তেতুলের সস এর সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন। শীতের বিকালে চা এর সাথে গরম গরম পিয়াজ এর পাকোড়ার মজাই আলাদা।

টিপস –

বেকিং সোডা /খাবার সোডার পরিবর্তে বেকিং পাউডারও দেয়া যাবে। বেকিং পাউডার পরিমাণে একটু বেশি দিতে হবে। সেই ক্ষেত্রে সমান করে ১ চা চামচ বেকিং পাউডার দিতে হবে।

Check Also

মজাদার রসুন ভর্তা তৈরির রেসিপি

গরম ভাতে সুস্বাদু ভর্তার কোনো পদ হলে আর কথা নেই! গপাগপ কখন যে সাবাড় হয়ে …