তাসকিনদের আতিথেয়তায় মুগ্ধ ওয়াহেদ পরিবার

২০১৭ সালের ১ মে। হঠাৎ করে ফুটবলকে বিদায় জানানোর ঘোষণা দেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের স্ট্রাইকার ওয়াহেদ আহমেদ। কোনোরকম পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টের মাধ্যমে বুটজোড়া তুলে রাখার কথা জানান ২৫ বছর বয়সী এই সিলেটি ফুটবলার। ফুটবল ছাড়ার পরই স্থায়ীভাবে পাড়ি জমান লন্ডনে। সেখানে পারিবারিক রেস্তোরাঁর ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন সাবেক এই ফুটবলার।

সম্প্রতি স্ত্রী শাহনাজ প্রিয়া ও ছেলেকে নিয়ে দেশে এসেছিলেন ওয়াহেদ। এখানেই শেষ নয়, সময় করে ছুটে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের তারকা পেসার তাসকিন আহমেদেরবাড়িতেও। তাসকিনের লালমাটিয়ার বাসায় গিয়ে তাদের আতিথেয়তা মুগ্ধ হয়েছেন ওয়াহেদ ও তার পরিবার।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টের মাধ্যমে সেই মুগ্ধতার কথা জানিয়েছেন ওয়াহেদ। ৯ মার্চ, শনিবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ১০টি ছবি পোস্ট করেন ওয়াহেদ। ছবিতে দেখা যায়, তাসকিনের স্ত্রী সৈয়দা রাবেয়া নাঈমা ও তাদের ছেলে তাশফিন আহমেদ রিহানের সঙ্গে মধুর সময়ই কাটাচ্ছেন ওয়াহেদ ও তার স্ত্রী-সন্তান।

এই পোস্টের ক্যাপশনে ওয়াহেদ লেখেন, ‘তাসকিন ও তার পরিবারের সঙ্গে তাদের বাড়িতে অসাধারণ সময় কাটিয়েছি। তোমার এমন আতিথেয়তার জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাই।’

২০১৪ সালে লন্ডনপ্রবাসী শাহনাজ প্রিয়াকে বিয়ে করেন ওয়াহেদ। এরপর কখনো লন্ডন, কখনো বাংলাদেশ—এভাবেই সময় কেটেছে জাতীয় দলের সাবেক এই স্ট্রাইকারের। তবে ২০১৭ সালের শুরুতে স্থায়ীভাবে লন্ডনে পাড়ি জমিয়েছেন ওয়াহেদ। এরপর অবশ্য মাঝেমধ্যেই দেশে এসেছেন। তবে সেটা খুব অল্প সময়ের জন্য।

Check Also

অভিনয় জগতে আসতে চান না শাহরুখ পুত্র

শাহরুখ খানের বড় ছেলে আরিয়ান খান। স্নাতক করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসের ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া …