শরীরী ইশারায় মানুষ চিনে নিন খোলা খাতার মতো, বিশেষত মেয়েদের (পর্ব-১)

সবার আগে মনে রাখা উচিত প্রতি মানুষের আলাদা একটা প্রাথমিক চরিত্র রয়েছে। এবং পরিস্থিতি অনুযায়ী সেটি যখন-তখন পরিবর্তন হতে পারে। মানুষের হাব-ভাব, হাতের ধরন, কথা বলার অভ্যেস– এমন অনেক কিছুই কিন্তু তাঁর চরিত্রের একটা আভাস দিয়ে থাকে।

শব্দের থেকে অনেক বেশি সৎ আমাদের শরীরী ভাষা। যদিও সব মানুষের শরীরের ধরন, শরীরে ভাষা একেবারে আলাদা। তাই শরীরের ভাষা দেখে কারও মন বোঝার জন্য একটু প্রস্তুতি প্রয়োজন।

সবার আগে মনে রাখা উচিত প্রতি মানুষের আলাদা একটা প্রাথমিক চরিত্র রয়েছে। এবং পরিস্থিতি অনুযায়ী সেটি যখন-তখন পরিবর্তন হতে পারে। মানুষের হাব-ভাব, হাতের ধরন, কথা বলার অভ্যেস– এমন অনেক কিছুই কিন্তু তাঁর চরিত্রের একটা আভাস দিয়ে থাকে।

প্রথম পর্বে রইল তিনটি উদাহরণ…

১. হ্যান্ডশেক

মানুষ যেভাবে হ্যান্ডশেক করে তা দিয়ে সেই ব্যক্তির একটি প্রাথমিক ধারণা আমাদের তৈরি হয়। সাধারণ তিন ধরনের হ্যান্ডশেক হয়ে থাকে। হাম্বল, যেখানে হাতের করতল উপরের দিকে থাকে। ডমিনেটিং, যেখানে হাতের করতল নীচের দিকে থাকে। নিউট্রাল, যেখানে দুই ব্য়ক্তির হাতের পজিশন একই দিকে থাকে।

 

হ্যান্ডশেকের ধরন

২. হাসি

হাসি সাধারণত দু’ধরনের হয়। একটা মনখোলা হাসি, আরেকটা ফেক অর্থাৎ তৈরি করা। মনখোলা হাসিতে সবসময়ই হাসির রেখা চলে যাবে চোখ পর্যন্ত। ভ্রু নীচের দিকে নেমে আসবে খানিকটা। চোখের চারপাশ কুঁচকে যাবে। অন্যদিকে, তৈরি করা হাসির ক্ষেত্রে মুখের উপরের অংশে কোনও প্রভাবই পড়বে না।

হাসির ধরন

৩. প্রতীকস্বরূপ ভঙ্গি

আমরা অনেক সময়ই আঙুলের বিভিন্ন ভঙ্গিমা দেখিয়ে কথা বলে থাকি। মোটামুটি সেগুলির অর্থ আমাদের সকলেরই জানা। এগুলিকে প্রতীকস্বরূপ ভঙ্গি বলা হয়। প্রথমে দেখতে হবে, যা নিয়ে ব্যক্তিটি কথা বলছেন, তাঁর হাতের ভঙ্গি সেই সম্পর্কিত কি না। অনেক সময় থাম্বস আপ দেখিয়ে ঠোঁট কুচকে থাকেন অনেকে, সেক্ষেত্রে সেটি নেতিবাচক হতে পারে। আবার হ্য়াঁ বলে কেউ কাঁধ ঝাকালে তা ইতিবাচক হয়।

প্রতীকস্বরূপ ভঙ্গি

Check Also

আগুন ঠেকাতে দরকার

কিছুদিন ধরে অগ্নিকাণ্ডের পরিমাণ বেড়ে যাওয়াতে মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি হচ্ছে। সে কারণে রাজধানীর বাণিজ্যিক …