সব ক্রিকেটারের জন্য দোয়া চাইলেন তামিম-পত্নী

নীয় সময় তখন ১টা ৪০ মিনিট। অনুশীলন শেষ করে জুমার নামাজ আদায় করতে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি পার্কমুখী সড়ক দীন অ্যাভিনিউতে আল নুর মসজিদে যাচ্ছিলেন নিউজিল্যান্ডে অবস্থানরত বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। ঠিক এমন সময় ওই মসজিদে হামলা চালায় এক সন্ত্রাসী। এই হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন ৪৯ জন।

হ্যাগলি ওভালের আল নুর মসজিদে হামলার খবরে অন্যদের মতো স্বাভাবিকভাবে মুষড়ে পড়েন তামিম ইকবালের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা। কারণ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্টে অংশ নিতে হামলার সময় ক্রাইস্টচার্চে অবস্থান করছিলেন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। তবে স্বস্তি ফিরেছে তামিমের টুইটে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে এক টুইট বার্তায় দেশসেরা এই ওপেনার লিখেন, ‘পুরো দল গোলাগুলির হাত থেকে বেঁচে গেল। খুবই ভয়াবহ অভিজ্ঞতা, সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

তামিমের কাছ থেকে এমন খবর পাওয়ায় খানিকটা স্বস্তি ফিরেছে আয়েশার মনে। একই সঙ্গে তামিমসহ নিউজিল্যান্ডে থাকা জাতীয় দলের প্রত্যেক ক্রিকেটারের জন্য দোয়া চেয়েছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টের মাধ্যমে তামিম ও তার সতীর্থদের জন্য দোয়া চান চিনি।

এদিন নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে আয়েশা লিখেন, ‘ঘুম থেকে উঠেই ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার ভয়াবহ খবরটা পেলাম। এটা বিধ্বংসী। হামলায় হতাহতদের জন্য আমার প্রাণ বেরিয়ে যাচ্ছে। মহান আল্লাহ্‌ তা’আলা তাদের পরিবারকে শক্তি দিন।’

এ সময় তামিম সুস্থ আছে জানিয়ে তিনি আরও লিখেছেন, ‘মেসেজের জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। আলহামদুলিল্লাহ্‌! তামিম নিরাপদ আছে। দয়া করে সবাই তার জন্য দোয়া করবেন।’

এদিন অল্পের জন্য বড় ধরনের বিপদ থেকে রক্ষা পান বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। কেবল পাঁচ মিনিট আগে ক্রিকেটাররা মসজিদে পৌঁছালে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারতো। কারণ দুপুর দেড়টায় বাংলাদেশ দলের মসজিদে ঢোকার কথা ছিল। কিন্তু অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সংবাদ সম্মেলন শেষ করে মসজিদে যেতে যেতে ১টা ৪০ বেজে যায়। ফলে হামলার খবর পেয়ে হ্যাগলি পার্কের রাস্তা ধরে স্টেডিয়ামে ফেরেন ভয়ার্ত ক্রিকেটাররা।

Check Also

নভেম্বরে বাংলাদেশে খেলতে আসছে আর্জেন্টিনা

মাঝে গুঞ্জন ছড়িয়েছিল, বাংলাদেশে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলতে আসবে দুই চির প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ ব্রাজিল ও …