নববর্ষ ব্রণহীন ত্বকে

নতুন পোশাক, সাজগোজ, খাবারের আয়োজন সবই হচ্ছে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে। তবে চিন্তায় আছেন ত্বকের ব্রণগুলো নিয়ে, মাত্র একটা সপ্তাহ রয়েছে হাতে এই অল্প সময়ে ব্রণ সারিয়ে দাগহীন ত্বক পাওয়া কীভাবে সম্ভব তাই তো ভাবছেন?

সম্ভব, নিচে দেয়া হলো এই অল্প সময়ে ব্রণের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়ার ‌উপায়। জেনে নিন:

বেকিং সোডা
আমাদের সবার রান্নাঘরেই বেকিং সোডা থাকে। তাই খুব সহজেই পেয়ে যাবেন এটি। জানেন কি? বেকিং সোডা ব্রণ সারাতে টনিকের কাজ করে। একটি বাটিতে ১ চামচ বেকিং সোডা সাথে একটু পানি মিশিয়ে পেষ্ট করে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। ব্রণ কমে যাবে ।

যবের গুঁড়া
যবের গুড়া ১ চামচ পানির সাথে মিশিয়ে পেষ্ট করে সারা মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।পারিষ্কার তোয়াল দিয়ে মুছে নিন।যবের গুঁড়া ব্রণ দূর করে ও মুখ পরিষ্কার হয়।

ডিমের সাদা অংশ
ডিমের সাদা অংশ পেষ্ট করে ত্বকে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। ত্বকে যদি ডিমে এলার্জির সমস্যা হয়, তাহলে এটা ব্যবহার করা যাবে না।

অলিভ অয়েল
অলিভ অয়েল ত্বকের জন্য ভালো ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে এবং ত্বক কোমল ও মসৃণ হয়। নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের দাগ দূর করে।

বরফের জাদু
ব্রণের ওপর বরফ টুকরো ঘষুন। এর রয়েছে দারুণ ক্ষমতা। এটি ব্রণের আকার কমিয়ে দেয় কয়েক মুহূর্তেই। আর ব্রণ দূরও হয় দ্রুত। এছাড়া ত্বকের উজ্জ্বলতায় এক টুকরো বরফ একটি পরিষ্কার কাপড়ে নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করুন। সারাদিন বাইরে থাকলেও ত্বক সতেজ দেখাবে। সুর্যের ক্ষতিকর প্রভাব দূর করতে আর ব্রণ কমাতেও বরফের জুড়ি নেই।

টক দই
টক দই ব্রণের জন্য খুব ভালো। টক দই সারা মুখে মেখে ১০ মিনিট পর ধুয়ে নিন। টক দই ব্যবহারের ফলে ত্বক হয় উজ্জ্বল ও মসৃণ।

নিয়মিত যত্ন নিয়ে বাংলা নতুন বছরে নিজেকে আরও আকর্ষণীয়-সুন্দর করে তুলুন।

Check Also

আধ ঘণ্টায় উজ্জ্বল ত্বক পাবেন যেভাবে

হঠাৎ করেই দাওয়াত কিংবা পার্টি? এদিকে রূপচর্চা না করার কারণে ত্বকের রং নিষ্প্রোভ? কী করা …