নায়িকা নুসরাতের সিঁথিতে এখন সিঁদুর

২০১৯ জুড়ে নুসরাতের জীবনে শুধুই সফলতা। নির্বাচনে জয়ী হয়ে তিনি এখন সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসর বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের বসিরহাট থেকে জয়ী একজন সংসদ সদস্য। আর এরই মধ্যে তিনি নিজের জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করেছেন। প্রেমিক নিখিল জৈনকে বিয়ে করেছেন তিনি।

গত কয়েকদিন ধরে নুসরাতের বিয়ের খবরই টলিপাড়ার হটকেক। বিদেশে গিয়ে এক মনোরম ডেস্টিনেশনে বিপুল খরচে বিলাসবহুল বিয়ে সারলেন বসিরহাটের সাংসদ তথা অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। হলদি, মেহেন্দি, সঙ্গীত, ফেরা আর হোয়াইট ওয়েডিং- সব অনুষ্ঠানই একেবারে আগাগোড়া পারফেক্ট। সঙ্গে সমুদ্রের ধারে বন্ধুদের সঙ্গে পার্টি। বাদ যায়নি কোনও রসদই।

বিয়ের অনুষ্ঠান আপাতত শেষ। তবে ছোটখাটো হানিমুন সেরে নিচ্ছেন নুসরাত। কোথায় গিয়েছেন জানা নেই। তবে সেই ছবি পোস্ট করলেন নুসরাতের স্বামী নিখিল জৈন। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, হেলিকপ্টারের ককপিটে বসে আছেন নিখিল। এছাড়া সঙ্গে রয়েছেন নুসরাত। সেই ছবিও পোস্ট করেছেন তিনি। সদ্য বিয়ের পরই সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে নুসরাতের কপালে সিঁদুর।

নুসরাতের স্বামী তথা কলকাতার ব্যবসায়ী নিখিল জৈন তাঁর ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে সেই ছবি পোস্ট করেছেন। মোট তিনটি ছবি পোস্ট করেছেন তিনি। নুসরাতের সঙ্গে যে ছবিটি তুলেছেন, সেখানে অনেকেই কমেন্ট করছেন, নুসরাতের ঘাড়ে নাকি লাভ বাইটও দেখা যাচ্ছে। তবে নো মেক আপ লুকের এই সেলফিতেও সমান মোহময়ী নুসরাত।গত কয়েকদিনে নুসরাতের বিয়ের বেশ কিছু ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। বিয়েতে লাল লেহেঙ্গা পরেছিলেন তিনি। হোয়াইট ওয়েডিংয়ে তো তিনি যেন রূপকথার পরী।

নুসরাত ও নিখিল তাঁদের ইনস্টাগ্রামে বিয়ের ছবিটি পোস্ট করে লেখেন, ”Towards a happily ever after with…” এর আগেও বোদরুম থেকে ছবি পোস্ট করেছেন তাঁরা। ছবি পোস্ট করেছেন মিমিও।

নুসরাত ও তাঁর হবু বর নিখিল দু’জনেরই নামের অদ্যক্ষর N ও পদবীর অদ্যক্ষর J. তাই এই বিয়ের ছবি দিতে #NJAffair হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করছেন তাঁরা।

এখন অবশ্য তাঁর পরিচয়টা শুধুই অভিনেত্রী নয়, সাংসদও। সুন্দরী-তরুণী সাংসদ হিসেবে তাঁর নাম ছড়িয়ে পড়েছে গোটা দেশে। আর সাংসদ হয়েই বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন নুসরাত। তাই তাঁর বিয়ে নিয়ে আগ্রহ রয়েছে অনেকেরই।

১৮ জুন ছিল নুসরাতের মেহেন্দি ও পুল পার্টি। পাঁচতারা হোটেলের বিশাল পুলে ছিল পার্টি। সন্ধেয় বসে নাচ-গানের আসর। অর্থাৎ সঙ্গীত। সন্ধে থেকে শুরু হয়ে সারা রাত চলে সঙ্গীত। পরের দিন হলদি অর্থাৎ গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। দু’জনেই হলুদ রঙের ভারতীয় পোশাক পরেন।

হলদির দিন সন্ধেয় হয় ‘ফেরা’ বা বিয়ে। ভারতীয় রীতি মেনে হওয়া ওই অনুষ্ঠানে ভারতীয় পোশাক পরেন নুসরাত। ‘ফেরা’র পর রাতে হয় রিসেপশন, সঙ্গে আফটার পার্টি।

পরের দিন অর্থাৎ ২০ তারিখে হয় হোয়াইট ওয়েডিং। ঠিক যেভাবে ক্রিশ্চান মতে বিয়ে হয়, তেমনটাই হয় নুসরাত-নিখিলের বিয়ে।

Check Also

বরুণকে মিথ্যাবাদী বললেন কৃতি!

বলিউড অভিনেতা বরুণ ধাওয়ান ও অভিনেত্রী কৃতি শ্যানন খুব ভালো বন্ধু। তাদের আন্তরিক সম্পর্কের বিষয়টি …