অকালে চুল পাকা, খুশকি সবই দূর করবে এই ফল

মিশমিশে কালো, খুশকিমুক্ত, স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল পেতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে একটি ফল। ছোট্ট, গোলাকার এই ফলটি ভিটামিন সি-তে ভরপুর। শরীর সুস্থ রাখতে চিকিৎসকরা এটি নিয়মিত খাওয়ার পরামর্শ দেন। এটি ত্রিফলার তিনটি ফলের একটি। কী? বুঝে গেছেন? জ্বী, ঠিক ধরেছেন। বলছি আমলকির কথা।

আমলকি নিয়ে বিভিন্ন গবেষণায় জানা গিয়েছে, এতে থাকা বিশেষ কিছু অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ক্যান্সারের মতো অসুখকেও দূরে রাখতে সাহায্য করে। চুলের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনার পাশাপাশি চুল ঝরে যাওয়া, খুশকি, অ্যালোপেশিয়া অ্যারিয়েটাসহ নানা সমস্যা দূর করতে এটি সিদ্ধহস্ত।

আমলকিতে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইটো কেমিক্যালস। এগুলো চুল ত্বক সবই ভালো রাখতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখে।

চলুন জেনে নেই চুল সুন্দর রাখতে আমলকি কিভাবে কাজ করে-

চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে আমলকির ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস এবং ভিটামিন সি। এরা মাথার ত্বকের রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে চুল লম্বা হতে এবং ঘন হতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নেয়। আমলকির ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস চুলের কোলাজেন নামে এক বিশেষ প্রোটিন তৈরি করে। তাই চুল ভালো রাখতে আমলকি ব্যবহার করুন নিয়মিত।

অনেকেই খুশকির সমস্যায় ভোগেন। এই সমস্যা দূর করতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নেয় আমলকি। আমলকির ভিটামিন সি ইনফ্যামেশন ও সংক্রমণ প্রতিরোধ করার পাশাপাশি শুষ্ক স্ক্যাল্পকে ময়েশ্চারাইজ করে খুশকির সমস্যা সারিয়ে তোলে।

আমলকি হলো প্রাকৃতিক কন্ডিশনার। চুলের ধরন শুষ্কই হোক বা তেলতেলে- আমলকি শুকিয়ে গুঁড়ো করে পানি দিয়ে পেস্ট করে মাথায় লাগিয়ে রাখুন ঘণ্টাখানেক। শ্যাম্পু করে নিলেই সুন্দর ফুরফুরে চুল পাবেন।

ধোঁয়া, ধুলো, দূষণের পাশাপাশি চুলের স্টাইল করতে গিয়ে জেল লাগানো, স্ট্রেটনিং, ড্রাইং ইত্যাদির কারণেও চুলের অনেক ক্ষতি হয়। তা দূর করে আমলকির অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট। সপ্তাহে অন্তত দু’দিন কাঁচা আমলকির রস করে তা চুলের গোড়ায় লাগিয়ে রাখুন। গোসলের সময় ধুয়ে ফেলতে হবে।

বিভিন্ন কারণে অকালে চুল পেকে যায়। রাসায়ানিক রং দিয়ে চুল না ঢেকে আমলকির তেল মাথায় মাখুন। চুল পাকার সমস্যা কমবে অনেক।

আমলকি খেলেও চুল ও ত্বক ভালো থাকে। তবে বাজারচলতি জুসের পরিবর্তে বাড়িতে টাটকা আমলকি শুকিয়ে গুঁড়ো করে রেখে পানিতে ভিজিয়ে পরের দিন সকালে খেলে উপকার পাবেন।

যেভাবে তৈরি করবেন আমলকির তেল:

আমলকি পাতলা করে কেটে শুকিয়ে গুঁড়ো করে রাখুন। তাতে নারিকেল তেলে মিশিয়ে রোদ্দুরে দিন। রোদে গরম হওয়া তেল নিয়ম কলে মাথার ত্বকে মাখুন। অথবা কাঁচা আমলকি বেটে নিয়ে নারকেল তেলের সঙ্গে মৃদু আঁচে ফুটিয়ে ছেঁকে রাখুন। এই তেল অনেক দিন ব্যবহার করতে পারবেন।

Check Also

এই উপায়গুলো মেনে চললে খুশকি হবে না

শীতের শুরু হতে না হতেই শুষ্ক হতে শুরু করে আমাদের ত্বক। আর সেইসঙ্গে যোগ হয় …