মেদ ঝরানোর সেরা উপাদান রঙিন আলু!


আলু খাদ্য তালিকায় সব কিছুর উপরে থাকে। মাছ-মাংস থেকে শুরু করে সব তরকারিই বেশ মজাদার করে তুলে। এবার আলু নিয়ে নতুন তথ্য দিয়েছে পুষ্টিবিদরা। তাদের মতে, রাঙা (রঙিন) আলু শরীরের জন্য অনেক উপকারী। এমনকি মেদ কমানোর জন্য খুবই উপকারী এই রঙিন আলু।

আমেরিকান ওবেসিটি অ্যাসোসিয়েশন বলছে, রঙিন আলুর গ্লাইসেমিক ইনডেক্স (জিআই) এতটাই কম যে এর থেকে তৈরি হওয়া গ্লুকোজ দ্রুত রক্তে মিশে যেতে পারে। এ ছাড়াও রঙিন আলুর বেশ কিছু গুণের কথাও জানিয়েছে তারা।

আসুন জেনে নেয়া যাক রঙিন আলুর পুষ্টিগুণ ও কার্যকারীতা সম্পর্কে:-

অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট: রাঙা আলুতে জিঙ্ক সুপারঅক্সাইড, স্পোরামিন, ক্যাটালেস ধরনের অ্যান্টিঅক্সাইডের পরিমাণ বেশি থাকে বলে এগুলি শরীরের প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে।

ফাইবার: রাঙা আলুতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। যা পাকস্থলীতে জেল জাতীয় আঠালো পদার্থ তৈরি করে। এতে পেট ভরে তাড়াতাড়ি, আজেবাজে খাওয়ার প্রবণতা অনেকটাই কমে আসে। ফলে ওজন কমানোয় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের সুযোগ পায়। রাঙা আলু মেটাবলিজম বাড়িয়ে তুলতে সক্ষম, সহজপাচ্য হওয়ায় হজমের সমস্যাতেও পড়তে হয় না।

জল শোষণকারী: মেটাবলিজম বাড়ানোর পাশাপাশি শরীরের জলকে শোষণ করে নিতে এই সব্জি ওস্তাদ। জলের সঙ্গেই শরীরের টক্সিনকে দূর করতেও বিশেষ কার্যকরী। তাই জমে থাকা জলের প্রভাবে শরীর ফুলে গেলে তার হাত থেকে অনেকটাই নিষ্কৃতি দেয় এই সব্জি। শরীরের পিএইচ ফ্যাক্টরে ভারসাম্য রাখতেও সাহায্য করে এটি।

উপকারী কার্বস: কার্বোহাইড্রেট মানেই যে তা অপকারী, তা কিন্তু নয়। বরং এনার্জি বাড়াতে এই সব্জি কাজে আসে। শরীর গঠনের প্রয়োজনীয় কার্বোহাইড্রেটের অন্যতম উৎস এই রাঙা আলু। প্রতি ৩০০ গ্রাম রাঙা আলু সেদ্ধ থেকে ৫৮ গ্রাম মতো কার্বোহাইড্রেট পাওয়া যায়। নো কার্বস ডায়েটে অভ্যস্তরাও একে সহজেই পাতে নিতে পারেন। কারণ, এর কার্বোহাইড্রেট দ্রুত রক্তে মিশে শক্তি উৎপন্ন করতে পারে

Check Also

মা হওয়ার পরও কীভাবে এত আকর্ষণীয় সানিয়া মির্জা?

মা হওয়ার পর বেশিরভাগ মেয়েরাই সাধারণত মুটিয়ে যান। ভারতের টস সেনসেশন সানিয়া মির্জাও তাই হয়েছিলেন। …