Advertisements

আদর্শ তারকা দম্পতির সুখে-দুঃখে ২৫ বছর

naim-shobnom আদর্শ তারকা দম্পতির সুখে-দুঃখে ২৫ বছর

আদর্শ তারকা দম্পতি হিসেবে সবার কাছে সমাদৃত নাইম-শাবনাজ। এই তারকা জুটি তাদের দাম্পত্য জীবনের ২৫তম রজত জয়ন্তী পূর্ণ করলেন শনিবার। ১৯৯৪ সালের ৫ অক্টোবর তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছিলো। এরপর থেকে বিগত পঁচিশ বছর তারা সুখে দুঃখে একসঙ্গে আছেন। তারা দুই গর্বিত কন্যা সন্তানের মা। বড় মেয়ে নামিরা এবং ছোট মেয়ে মাহাদিয়া।

দাম্পত্য জীবনের সাফল্যের পঁচিশ বছর পেরুনো প্রসঙ্গে নাইম বলেন, আমার বাবা ইন্তেকাল করেন ১৯৯৪ সালের জানুয়ারিতে। বাবা মারা যাবার পর আমাকে শাবনাজই মানসিকভাবে অনেক সাপোর্ট দিয়েছে যা সে সময় আমার জন্য খুবই প্রয়োজন ছিলো। পরবর্তীতে আমরা বিয়ে করি। আমাদের ঘর আলোকিত করে কন্যা সন্তান নামিরা ও মাহাদিয়া আসে। আল্লাহর অশেষ রহমতে আমরা সবসময়ই সুখে ছিলাম, সুখেই আছি।

Advertisements

শাবনাজ বলেন, এতোটা বছর পেরিয়ে এসে জীবনের ফেলে আসা দিনগুলোর কথা ভীষণভাবে মনে পড়ছে। মনে পড়ছে বিয়ের দিনটির কথা। খুব তাড়াহুড়ার মধ্যদিয়েই আমরা বিয়ে করেছিলাম। সেই থেকে আমরা সুখে দুঃখে নানান চড়াই উৎরাই পেরিয়ে একসঙ্গে আছি, আল্লাহর রহমতে বেশ ভালো আছি, সুখে আছি। এখন যেভাবে আছি সারাটা জীবন যেন নাইমের সঙ্গে এভাবেই কাটিয়ে দিতে পারি। আমার মেয়ে দুটির জন্য সবাই দোয়া করবেন।

১৯৯১ সালের ৪ অক্টোবর এহতেশাম পরিচালিত ‘চাঁদনী’ সিনেমাতে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে দেশীয় চলচ্চিত্রে নাইম-শাবনাজ জুটির অভিষেক হয়। এ জুটির অভিষেকের মধ্যদিয়ে আরেক রোমান্টিক জুটির সফল যাত্রা শুরু হয়। এরপর একে একে তারা দর্শককে উপহার দেন ‘দিল’, ‘সোনিয়া’,‘চোখে চোখে’, ‘বিষের বাঁশি’, ‘অনুতপ্ত’ ,‘টাকার অহংকার’, ‘সাক্ষাৎ’, ‘জিদ’, সহ আরো বেশকিছু চলচ্চিত্র।

সর্বশেষ তারা দু’জন ‘ঘরে ঘরে যুদ্ধ’ চলচ্চিত্রে জুটি হয়ে অভিনয় করেছিলেন। নাইম সর্বশেষ ‘মেয়েরাও মাস্তান’ এবং শাবনাজ সর্বশেষ আজিজুর রহমানের ‘ডাক্তার বাড়ি’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। এরপর নাইম শাবনাজ জুটিকে আর চলচ্চিত্রে অভিনয়ে দেখা যায়নি। আলমগীর পরিচালিত ‘নির্মম’ সিনেমাতে অভিনয়ের জন্য শাবনাজ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন।

Advertisements

Check Also

ইনস্টাগ্রামে ঝড় তুললেন জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ!

মাঝে মধ্যেই অনুরাগীদের চমক দিতে ইনস্টাগ্রামে বিভিন্ন ধরনের ছবি পোস্ট করতে দেখা যায় অভিনেত্রী জ্যাকলিন …