পুরুষের শুক্রাণু বাড়াতে ৫ খাবার

সাধারণত শুক্রাণুর গুণগত মান কম হলে পুরুষের বন্ধ্যত্ব হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, প্রতি মিলিলিটারে ১৫ মিলিয়ন শুক্রাণু থাকলে এটি পরিপক্ব। এর চেয়ে নিচে নেমে গেলে অস্বাভাবিক।

বিভিন্ন গবেষণায় বলা হয়, দেহে ভিটামিন ও জিংকের ঘাটতি থাকলে পুরুষের বন্ধ্যত্ব হতে পারে। এর মানে খাদ্যাভ্যাসে কিছু পরিবর্তন আনলে শুক্রাণুর গুণগত মান বাড়ে।

শুক্রাণুর গুণগত মান বাড়াতে কিছু খাবারের কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট মেডিকেল নিউজ টুডে ও মম জাঙ্কশন।

টমেটো

টমেটোর মধ্যে রয়েছে লাইকোপেন। এ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শুক্রাণুর গুণগত মান বাড়াতে কাজ করে। টমেটো রান্নার ক্ষেত্রে জলপাইয়ের তেলও দিতে পারেন। এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শোষণ ভালো হয়।

ওয়ালনাট

ওয়ালনাটের মধ্যে রয়েছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড। সোসাইটি ফর দ্য স্টাডি অব রিপ্রোডাকশনের এক গবেষণায় বলা হয়, প্রতিদিন ৭০ গ্রাম ওয়ালনাট খাওয়া ২১ থেকে ৩৫ বছরের পুরুষের ক্ষেত্রে শুক্রাণুর জীবনীশক্তি, ক্ষিপ্রতা বাড়ায়।

ওয়ালনাট সালাদের সঙ্গে খেতে পারেন। এ ছাড়া স্ন্যাকস হিসেবে খেতে পারেন এ সুস্বাদু বাদামটি।

কুমড়ো বীজ

কুমড়ো বীজের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, প্রয়োজনীয় অ্যামাইনো এসিড ও ফাইটোসটেরল। এ খাবারটি পুরুষের প্রজনন ক্ষমতা বাড়াতে কাজ করে। গবেষণায় দেখা যায়, কুমড়ো বীজে থাকা উপাদান টেসটোসটেরোন হরমোনের সিরামের মাত্রা বাড়ায়। এ ছাড়া শুক্রাণুর মাত্রা, জীবনীশক্তি, ক্ষিপ্রতা বাড়াতে কাজ করে।

আনার

আনারের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। গবেষণায় বলা হয়, এটি টেসটোসটেরন ও শুক্রাণুর গুণগত মান বাড়াতে উপকারী।

আরেকটি গবেষণায় ইঁদুরকে আট সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন আনারের রস খাওয়ানো হয়েছিল। ফলাফলে দেখা যায়, ইঁদুরের শুক্রাণুর গুণগত মান বেড়েছে।

কালো চকলেট

এর মধ্যে রয়েছে অ্যামাইনো এসিড এল-আরজিন। এটি শুক্রাণুর মাত্রা ও বীর্যের পরিমাণ বাড়ানোর উপাদান হিসেবে পরিচিত। এ ছাড়া এর মধ্যে উচ্চ পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। এটি ফ্রি র‍্যাডিকেলের সঙ্গে লড়াই করে। ফ্রি র‍্যাডিকেল শুক্রাণুর গুণগত মান নষ্ট করে। প্রতিদিন এক কামড় কালো চকলেটও শুক্রাণুর মান বাড়াতে উপকারী।

Check Also

প্রাচীনকালে জন্মনিয়ন্ত্রণের ৬ পদ্ধতি

জন্মনিয়ন্ত্রণের অনেক পদ্ধতি এখন প্রচলিত রয়েছে। ওষুধ সেবন কিংবা দীর্ঘমেয়াদি ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে জন্মনিয়ন্ত্রণ করা …