সৌদিতে নির্যাতনের শিকার, দেশে ফিরে আত্মহত্যা করলেন সেই আসমা

সৌদি আরবে গৃহকর্মীর কাজ করতে গিয়ে অমানুষিক নির্যাতনের স্বীকার হয়েছিলেন আসমা খাতুন (১৯)। নির্যাতন সইতে না পেরে একমাস আগে দেশে ফিরে আসেন তিনি। কিন্তু দেশে ফিরেও তিনি ভুলতে পারেন নি সেই স্মৃতি, মানিয়ে নিতে পারেন নি আশেপাশের সবার সাথে। তাই মানসিক যন্ত্রণা থেকে বাঁচতে আত্নহত্যার পথ বেছে নিলেন আসমা। ঘটনাটি ঘটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইলে বুধবার (২০ নভেম্বর)।

আসমার মা রহিমা বেগম জানান, সৌদি আরব থেকে আসার পরই আসমাকে মনমরা দেখা যায়। সৌদিতে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছিল সে। সে যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরেই আসমা আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ শাহাদাৎ হোসেন টিটু জানান, সৌদি আরব থেকে ফিরেও মেয়েটি মানসিক যন্ত্রণার মধ্যে ছিল। মানসিক তৃপ্তির জন্য তাকে বোন জামাইয়ের বাড়িতে বেড়াতে পাঠানো হয়। সেখানেই একদিন থাকার পর সে আত্মহত্যা করে। মানসিক যন্ত্রণা থেকেই সে আত্মহত্যা করে থাকতে পারে ধারণা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে পরিবারের কোনো অভিযোগ ছিল না।

Check Also

ঢাকায় বিনা চিকিৎসায় পুর্তগাল নাগরিকের মৃত্যু, ভাইয়ের আবেগঘন স্ট্যাটাস

ঢাকায় বিনা চিৎিসায় ছোট ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে এমন অভিযোগ করে ফেসবুকে আবেকঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন পর্তুগালের …