চিকিৎসকের হাতের লেখা এমন হয় কেন?

অনেক চিকিৎসাপত্র দেখলে মনে হয়, এসব কী হিজিবিজি লিখেছেন ডাক্তার সাহেব? কিছুই তো বোঝা যাচ্ছে না। আমি নিশ্চিত, আপনার ক্ষেত্রেও এমনই ঘটে। কখনো কখনো এগুলো পড়া দুরূহ বটে।

তবে কখনো কি ভেবেছেন, এর কারণ কী? সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার অনলাইন সংস্করণ জানিয়েছে এর উত্তর। আসুন জানি—

তাঁরা অনেক লেখেন

আপনি হয়তো ভাবছেন, চিকিৎসক কেবল আপনার চিকিৎসাপত্রই লিখছেন, বিষয়টি ঠিক নয়। অন্যান্য পেশায় যত বেশি লিখতে হয়, তার চেয়েও বেশি লেখেন চিকিৎসক। হয়তো খেয়াল করে দেখবেন, একজন চিকিৎসক আপনার মেডিকেল ইতিহাসের প্রতিটি ছোট ছোট বিষয়েরও বিবরণ লিখছেন।

টানা চাপযুক্ত দিন

একজন চিকিৎসক দিনে অন্তত ২০ থেকে ৫০ জন রোগী দেখেন। কখনো কখনো এ সংখ্যাও পার হয়ে যায়। প্রত্যেকের কথা মনোযোগ দিয়ে শোনা এবং সঠিক ওষুধ চিকিৎসাপত্রে লেখা কিন্তু কম কঠিন কাজ নয়। পাশাপাশি জরুরি রোগীও দেখতে হয়। তো, সারা দিন ক্লান্ত হাতে লিখতে থাকা কতটা কষ্টের, নিশ্চয়ই সেটি অনুমেয়।

পেশি বেশি কাজ করতে থাকলে হাতের লেখা খারাপ হওয়াটাই স্বাভাবিক। কারণ, এতে হাত ক্লান্ত হয়ে পড়ে।

তাড়াহুড়োর মধ্যে থাকেন

অনেককে দেখার কারণে তাঁরা বেশ তাড়াহুড়োর মধ্যে থাকেন। তাই চিকিৎসকেরা কেবল তথ্য লেখার প্রতি যতটুকু মনোযোগ দেন, অন্য বিষয়ের প্রতি তেমন মনোযোগ দেন না।

জার্গন দায়ী

চিকিৎসকেরা লেখার ক্ষেত্রে কিছু জার্গন বা বিশেষায়িত শব্দ ব্যবহার করেন। এটি সাধারণ মানুষের জন্য বোঝা কঠিন। দেখবেন, যাঁরা ওষুধ বিক্রি করেন, তাঁরা খুব সহজে এটি ধরে ফেলতে পারেন।

তবে বর্তমানে হাতের লেখার ঝামেলা এড়াতে অনেক চিকিৎসকই কম্পিউটারে চিকিৎসাপত্র লেখেন। লেখা বুঝতে অসুবিধা হলে আপনিও তাঁর কাছ থেকে এ ধরনের চিকিৎসাপত্র চেয়ে নিতে পারেন।

Check Also

শুধু কাবিন করলে কি বিয়ে হয়?

প্রশ্ন : কাবিনের মাধ্যমে অর্থাৎ নিকাহ রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে বিয়ে সম্পন্ন হয়ে যায় কি না? যেহেতু …