ত্বকের উজ্জ্বলতায় ফলের মাস্ক

কলা, পেঁপে, পেয়ারা আর ডালিম দিয়ে তৈরি ‘ফেইশল মাস্ক’ ত্বকের নানান সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

রূপচর্চা-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে ত্বক ভালো রাখতে ফল দিয়ে তৈরি কায়েকটি মাস্ক তৈরির পন্থা এখানে জানানো হল।

কলা ও মধুর মাস্ক: একটা বাটিতে কলা চটকে নিন। এতে এক টেবিল-চামচ মধু এবং সামান্য পরিমাণ লেবুর রস মেশান। মিশ্রণটি মুখে মেখে ১৫ থেকে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর তা কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটা তৈলাক্ত ত্বকে চমৎকার কাজ করে। কলাতে আছে অত্যাবশ্যকীয় ভিটামিন এবং পুষ্টি উপাদান যা ত্বক শান্ত করে এবং ব্রণ ওঠা কমায়। তাই এটা সব ধরণের ত্বকের জন্য উপকারী।

পেঁপে ও ডিমের সাদা অংশ: পেঁপে এবং ডিমের সাদা অংশ ত্বক টানটান করে। এক কাপ পাকা পেঁপে চটকে নিন। আলাদা একটা পাত্রে একটা ডিম ফেটে নিন। এরপর এই দুই উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক ত্বক টানটান করে। পেঁপেতে আছে ভিটামিন এ এবং সি। এতে থাকা প্যাপেইন নামক এনজাইম ত্বকের গাঢ় দাগ দূর করতে সহায়তা করে।

শীতে ত্বকের সমস্যায় পেয়ারার মাস্ক: আধা কাপ পেয়ারা কুচি করে তার সঙ্গে এক টেবিল-চামচ ওটমিলের গুঁড়া এবং এক টেবিল-চামচ মধু মিশিয়ে মাস্কটি ত্বকে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার এই প্যাক ব্যবহারে উপকার পাওয়া যাবে। পেয়ারা ভিটামিন এ, সি এবং অ্যাস্ট্রিনজেন্ট সমৃদ্ধ যা ত্বকের নানান সমস্যা, ব্রণ ও বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে।

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য ডালিম: কয়েকটি ডালিমের বীজ পিষে পেস্ট করে নিন। এতে এক টেবিল-চামচ গ্রিন টি’য়ের পাতা মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকানোর পরে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের রুক্ষভাব দূর হবে।

Check Also

দাঁতের ক্ষয় রোধের সহজ চার উপায়

দাঁতের ক্ষয় নিয়ে অনেকেরই দুশ্চিন্তার অন্ত নেই! আর এজন্য দাঁত ভালো রাখতে পুষ্টিকর খাবার খাওয়া …