এখনই দূর করুণ কনুইয়ের কালো দাগ


আমাদের শরীরে বিভিন্ন অংশে কালো দাগ হয়ে যায়। যার মধ্যে কনুয়ের দাগ উল্লেখযোগ্য। এই দাগ যেন কিছুতেই যায় না, নাছোড়বান্দা! আর এই দাগ শরীরে একেবারে বেমানানও। তাই এই দাগ দূর করতে আমরা সবাই অনেক চেষ্টা করি, অনেক কিছু ব্যবহার করেও থাকি। বরং ঘরোয়া কিছু উপায় অবলম্বন করলে এই দাগের হাত থেকে মুক্তি মিলবে সহজে।
তবে এর জন্য অনেকটা খরচ করার কোনও প্রয়োজন নেই। একেবারেই সহজলভ্য উপাদান ও নামমাত্র খরচেই বানিয়ে নিন ঘরোয়া কিছু প্যাক। সপ্তাহে ৩-৪ দিন ব্যবহার করলে দু’-তিন সপ্তাহের মধ্যেই ভাল ফল পাবেন। রইল সেই সব ঘরোয়া প্যাকের সন্ধান।

চিনি ও পাতিলেবু: জলে এক চামচ চিনি মিশিয়ে খানিকটা ফুটিয়ে নিন। চিনি গলে জলে মিশে যাওয়ার পর ঠান্ডা করে নিন সেই মিশ্রণ। এ বার এই চিনির রস আধখানা পাতিলেবুর গায়ে মাখিয়ে কনুইয়ের কালো দাগের উপর লেবুটা ঘষতে থাকুন। মিনিট দশেক পর ভাল করে ধুয়ে নিন।
লেবুর অ্যাসিড ও চিনির শর্করা ত্বকের মৃত কোষ ঝরিয়ে সরিয়ে দেয় এমন নাছোড় দাগ।

অলিভ অয়েল ও চিনির রস: চিনি যেমন প্রাকৃতিক স্ক্রাবার, তেমনই অলিভ অয়েলও ত্বককে নরম ও দাগমুক্ত রাখতে সাহায্য করে। ত্বকে ব্যবহারযোগ্য এক চামচ অলিভ অয়েল ও আধ চামচ চিনির রস মিশিয়ে কনুইয়ের উপর লাগিয়ে রাখুন। মিনিট দশেক পর চিনির রস টেনে গেলে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে বার তিনেক এই প্যাক লাগালে দু’তিন মাসের মধ্যেই দাগ অনেকটা হালকা হয়ে এক সময় উঠে যাবে।

দই, বেসন ও পাতিলেবু: এক চামচ টকদই, এক চামচ বেসন ভাল করে মিশিয়ে তার উপর গোটা একটি পাতিলেবু চিপে একটি প্যাক তৈরি করুন। পাঁচ মিনিট এই প্যাক লাগিয়ে রাখুন কনুইয়ে। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ময়শ্চারাইজার লাগান।
বেসন রোমকূপের ভিতরে লুকিয়ে থাকা ময়লা সরাতে কাজে আসে। সঙ্গে যোগ হয় দই ও পাতিলেবুর অ্যাসিড। তিনে মিলে দীর্ঘমেয়াদী কালো দাগ দূর করে।

Check Also

কাচের মতো ত্বক

ঝকঝকে ত্বক কার না পছন্দ! সেটা যদি হয় গ্লাসের মতো চকচকে, তবে তো কথাই নেই। …