দ্রুত শক্তি পেতে যেসব খাবার খাবেন

ক্লান্তি আসবেই। প্রতিদিনের ব্যস্ত জীবন যাপনে ছুটে চলতে গিয়ে শরীরের শক্তি ফুরিয়ে আসাটা অস্বাভাবিক নয়। হঠাৎ হঠাৎ ঝিমুনি ধরা বা বারবার হাই ওঠা খুব একটা কাজের কথা নয়। এর মানে হলো, আপনি শারীরিকভাবে অনেক ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন। এমন সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে খেতে হবে পাঁচটি খাবার। তবে পাঁচটি খাবার যে প্রতিদিনই খেতে হবে, তা নয়। বরং এই খাবারগুলো থেকে যেকোনো একটি বা দু’টি খাবার প্রতিদিন খেতে পারলেই শক্তির অভাব হবে না-

কলা: কলায় আছে কার্বোহাইড্রেট, পটাশিয়াম আর ভিটামিন বি সিক্স। এগুলো খুব দ্রুত শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। দুধ আর কলা দিয়ে মিল্কশেক তৈরি করে নিতে পারলে তো কথাই নেই, শরীরের পাশাপাশি ত্বকও ভালো থাকবে।

লাল চালের ভাত: লাল চালের ভাতে চালের পুষ্টিগুণের বেশিরভাগটাই সঞ্চিত থাকে। তার ফাইবার, প্রোটিন আর খনিজ খুব তাড়াতাড়ি প্রচুর শক্তি উৎপাদনে সাহায্য করে। বাড়তি ফাইবারের কারণে নিয়ন্ত্রণে থাকে আপনার রক্তের শর্করার পরিমাণও।

আপেল: একটি মাঝারি আকারের আপেলে ২৫ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট থাকে, থাকে ২০ গ্রাম চিনি আর ৫ গ্রামের মতো ফাইবার। এই ফাইবার আর প্রাকৃতিক সুগারই অনেকক্ষণ শক্তি ধরে রাখবেশরীরে। আপেলে প্রচুর অ্যান্টি অক্সিড্যান্টও মেলে।

ওটমিল: ওটস খেলে তা আপনাকে দীর্ঘ সময় চাঙ্গা থাকতে সাহায্য করবে। ওটসে বিটা-গ্লুকান নামের একটি সলিউবল ফাইবার থাকে যা রান্নার সময় পানির সঙ্গে মিশে গাঢ় একটি জেল তৈরি করে। এই জেল পাচনতন্ত্রে অনেকক্ষণ থাকে, ফলে পেট বেশিক্ষণ ভরা আছে বলে মনে হয়। তার সঙ্গে এর ভিটামিন আর খনিজ এনার্জি জোগায়।

বাদাম: দ্রুত শক্তি জোগাতে বাদাম বেশ কার্যকরী। এক্ষেত্রে কাজুবাদাম, আখরোট আর আমন্ডের বিকল্প নেই। ওমেগা থ্রি, ওমেগা সিক্স ফ্যাটি অ্যাসিড আর অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ এই বাদাম থেকে কার্বোহাইড্রেট আর ফাইবারও মেলে যথেষ্ট পরিমাণ।

Check Also

একটি উপাদানেই জয়েন্ট ও হাঁটুর ব্যথা সারিয়ে তুলুন

হাঁটুতে এমনকি পায়ের গোড়ালিতে ব্যথা হওয়ায় অনেকেই হাঁটতে পারেন না। আবার বসতে গেলেও যেমন ব্যথায় …