লিফট নয়, সিঁড়ি দিয়ে ওঠা-নামার ৭ উপকারিতা

সুস্থতা একজন মানুষের সবচেয়ে বড় সম্পদ। সুস্থ থাকার জন্য নিয়ম মেনে কিছু কাজ করা জরুরি। কিন্তু আমরা ক’জনেই বা তা মেনে চলি! বরং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নিয়ম ভাঙাই হয় বেশি। তবে বেশি কিছু নয়, স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া আর নিয়মিত শরীরচর্চার মাধ্যমে সুস্থতা অনেকটাই নিশ্চিত করা যায়।

আমাদের প্রতিদিনের জীবনযাপনে কয়েকটি পরিবর্তন আনার মাধ্যমে ফিট থাকা সম্ভব। এর মধ্যে অন্যতম হলো লিফট বা এসকেলেটরের সহজ অভ্যাস ভুলে সিঁড়ি দিয়ে ওঠা-নামা করা। জেনে নিন সিঁড়ি দিয়ে ওঠা-নামা করার কিছু উপকারিতা-

আপনি যদি প্রতিদিন সিঁড়ি দিয়ে ওঠা-নামা করেন, তবে তা আপনার শরীরের জন্য বেশ ভালো। এটি বেশ ভালো একটি কার্ডিয়োভাস্কুলার এক্সারসাইজ। নিয়মিত সিঁড়ি ভেঙে ওঠানামার অভ্যাস থাকলে হৃদরোগের আশঙ্কা কমে। এছাড়া সিঁড়ি দিয়ে ওঠা-নামা করলে উচ্চরক্তচাপ এবং ডায়াবেটিসের ভয়ও কমে।

হজমে সমস্যা? কিছু খেতে সহজে হজম হতে চায় না? কোষ্ঠকাঠিন্যের দরুন ভুগছেন? এমনকি খাবারে একটু এদিক-ওদিক হলেই পেটের ভেতর ভুটভাট শুরু হয়? হজমের এরকম অসংখ্য সমস্যার সমাধান মিলতে পারে সিঁড়ি দিয়ে ওঠা-নামার মাধ্যমে। সিঁড়ি দিয়ে বারবার ওঠানামা করলে মেটাবলিজম রেট বাড়ে, যা হজমের সমস্যা তো কমায়ই, ওজন কমাতেও সাহায্য করে।

গাড়ি একটু দূরে পার্ক করে খানিকটা পথ হেঁটেই যাওয়া, লিফট এড়িয়ে সিঁড়ি ভেঙে ওঠা-নামা ফাংশনাল অ্যাক্টিভিটির মধ্যে পড়ে। এগুলো আমাদের জয়েন্ট ভালো রাখতে সাহায্য করে। তাই এ পথেই হাঁটুন।

সিঁড়ি ভেঙে ওঠা-নামার অভ্যাস আপনাকে দূরে রাখতে পারে হার্টের অসুখের কারণে অকাল মৃত্যুর হাত থেকেও। প্রতিদিন অন্তত আটতলা পর্যন্ত হেঁটে ওঠা-নামা করলে কম বয়সে মৃত্যুর আশঙ্কা অনেকটাই এড়ানো যায়। প্রতিদিন অন্তত সাত মিনিট করে সিঁড়ি ভেঙে চলাচল করলে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা ৩৩% কমে।

অস্টিওরপোরোসিস হলো ক্যালসিয়ামের অভাবজনিত একটি অসুখ। বয়স্ক পুরুষ ও মহিলাদের সাধারণত এই রোগ হয়ে থাকে। যেসব বয়স্ক পুরুষ বহুদিন যাবত স্টেরয়েড ঔষুধ সেবন করেন তাদের এবং মহিলাদের মেনোপজ হবার পর এই রোগ হবার সম্ভাবনা বেশি। সিঁড়ি দিয়ে নিয়মিত ওঠা-নামা করলে অস্টিওরপোরোসিসের ভয় অনেকটাই কমানো সম্ভব হয়।

শারীরিক নানা কসরত শরীরের পাশাপাশি আমাদের মনও ভালো রাখতে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিন আপনি সিঁড়ি ভাঙলে তা আপনার শরীর তো বটেই, ভালো রাখবে মানসিক স্বাস্থ্যও।

সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করলে হার্ট তো ভালো থাকেই, এর পাশাপাশি ভালো থাকে ফুসফুসও। এর ফলে ফুসফুসের কাজ করার ক্ষমতা বাড়ে। তাই সুস্থ থাকতে লিফট এড়িয়ে সিঁড়ি দিয়েই ওঠা-নামা করার অভ্যাস করুন।

Check Also

শুধু কাবিন করলে কি বিয়ে হয়?

প্রশ্ন : কাবিনের মাধ্যমে অর্থাৎ নিকাহ রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে বিয়ে সম্পন্ন হয়ে যায় কি না? যেহেতু …