বাসস্ট্যান্ডের সেই মেয়েটি


ব্যস্ত শহরের কোনো এক বাসস্ট্যান্ডে প্রথম দেখা। আর ওই দেখাতেই অর্পাকে ভালো লাগে সাব্বিরের। ধীরে ধীরে পরিচয়, কথা বলা, একটা সময় মন দেয়া-নেয়া। সর্বশেষ ঘর বাঁধা। এইতো তাদের প্রেমকাহিনী।

অল্প কথায় বা এই ক’টা লাইন দিয়ে প্রায় সাড়ে পাঁচ বছরের ভালোবাসার চিত্রনাট্যটা সহজে বলে ফেলা গেলেও দারুণ কিছু রোমান্টিক ঘটনাই মূলত তাদের নিয়ে এসেছে এতদূর। ঘুরিয়েছে প্রেম-নদীর বাঁক। যার একটি এখনো ভুলতে পারেননি দুজন। বলতে পারেন ওটাই ছিল তাদের সম্পর্কের বিশেষ স্মৃতি।

সাব্বিরের কণ্ঠে, ‘আমাদের সম্পর্কের সবচেয়ে বিশেষ স্মৃতি হলো অর্পাকে নিয়ে প্রথম বাইকে করে ঘুরতে যাওয়া। একদিন অনেকটা চুরি করেই ওকে নিয়ে ঘুরতে যাই। এটা আমার সারাজীবন মনে থাকবে। কোনো মেয়েকে নিয়ে ওটাই ছিল প্রথম কোনো বাইক রাইড।’

সাব্বিরের কণ্ঠে সুর মিলিয়ে অর্পাও ওই দিনটাকে বসিয়েছেন বিশেষ জায়গায়, ‘ওর (সাব্বির) সাথে সে দিনের বাইকে চড়ার স্মৃতিটা সত্যিই অন্য রকম ছিল।’

দীর্ঘদিনের জানাশুনা, একটা সময় পরিবারও তাদের সম্পর্ক মেনে নেয়। তাতে করে সময় পেলেই অর্পা যেতেন সাব্বিরের বাসায়। সেখানে ছুটিয়ে আড্ডা দিতেন তারা। কখনো বের হতেন ঘুরতে। আবার কখনো কথা বলতে বলতেই চলে যেত অনেকটা সময়।

নিজ মুখেই তেমনটা বলেছেন সাব্বির, ‘আগে যখন ও (অর্পা) বাসায় আসতো আম্মু থাকতো ভুয়া থাকতো। আসলে তখন সেভাবে গোছানো ছিল না। বিয়ের পর তার মধ্যে অনেকটা পরিবর্তন দেখছি। সে খুবই ভালো মেয়ে, ঘরোয়া। সবসময় নিজেকে গুছিয়ে রাখে। অনেক পরিশ্রমী, আমাকেও অনেক ভালোবাসে।’

প্রসঙ্গত, গত বছরের মার্চে বিয়ে করেন সাব্বির। ওই সময় নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষ করে দেশে পা রেখে হুট করেই তিনি ভক্তদের বিয়ের সুসংবাদটা দেন। এরপর পারিবারিকভাবেই অর্পাকে বিয়ে করেন এই টাইগার ক্রিকেটার।

২০১৪ সালে জাতীয় দলে অভিষেক হয় সাব্বিরের। সে থেকে এখন পর্যন্ত ৬৬ ওয়ানডেতে অংশ নিয়েছেন তিনি। করেছেন হাজারের বেশি রান। এছাড়া ১১ টেস্ট এবং ৪৪ টি২০ খেলেছেন বাংলাদেশ দলের জার্সিতে।

Check Also

জর্জিনাকে মাসিক ৮৭ লাখ টাকা হাত খরচ দেন রোনালদো!

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্রীড়াবিদদের তালিকায় একেবারে প্রথমে উচ্চারিত হয় যার নাম তিনি ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তার …