করোনা নয়, এইডসের ভ্যাকসিন বানাতে চেয়েছিল চীন

এইডস ভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা করতে গিয়েই এই মারণ ভাইরাস করোনার চীন জম্ম দিয়েছে বলে দাবি করেছেন নোবেলজয়ী বিজ্ঞানী লুক মন্তাজিনিয়ের।

২০০৮ সালে এইচআইভি ভাইরাস আবিষ্কারের জন্য মেডিসিনে নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন লুক মন্তাজিনিয়ের। সেই বিজ্ঞানীও এবার চিনের দিকে আঙুল তুললেন।

এক ফরাসি সংবাদমাধ্যমে মন্তাজিনিয়ের দাবি করেছেন, করোনাভাইরাসের মধ্যে এইচআইভি’র সঙ্গে সঙ্গে ম্যালেরিয়ার জীবাণুও রয়েছে। এটাই অত্যন্ত সন্দেহজনক।

তার আরও দাবি, কোভিড-১৯’র যে সমস্ত বৈশিষ্ট্য দেখা গিয়েছে, তা প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্টি হতে পারে না।

ওই সংবাদমাধ্যমকে তিনি আরও জানান, উহান ন্যাশনাল বায়োসেফটি ল্যাবেরটরিতে ২০০০ সালের গোড়া থেকে করোনাভাইরাস নিয়ে গবেষণা চলছে। সেখান থেকেই সম্ভবত দুর্ঘটনাবশত এই ভাইরাসটি বাইরে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফরাসি বিজ্ঞানীর এই দাবিতে নিঃসন্দেহে চিনের উপরে চাপ বাড়ল। শনিবারই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, কীভাবে করোনাভাইরাসের মহামারী শুরু হল, তা নিয়ে আমেরিকা তদন্ত করছে।

তার কথায়, চীন বলছে, তারা তদন্ত করছে। দেখা যাক তারা তদন্ত করে কী পায়। কিন্তু আমরাও আমাদের মতো করে তদন্ত করছি। যদি এটা চিনের ইচ্ছাকৃত প্রমাণ হয় তবে ফলভোগ করতে হবে।

এর আগেই আমেরিকার জানিয়েছে, সম্ভবত উহানের গবেষণাগারে বাদুড় নিয়ে গবেষণা হচ্ছিল। তখনই দুর্ঘটনাবশত করোনাভাইরাস বাইরে ছড়িয়ে পড়ে। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অবশ্য দাবি করেছে, আমেরিকার মিলিটারি চীনে ওই জীবাণু এনেছিল।

Check Also

করোনায় একদিনে সারাবিশ্বে ৭ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু

কেবলই বাড়ছে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে মৃত্যের সংখ্যা। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একদিনে ৭ হাজার ৮শত …