ঘরে বসেই চা-কফি দিয়ে চুল রং করুন এই উপায়ে

চুলের সৌন্দর্য বাড়াতে অনেকেই রং করে থাকেন। এজন্য পার্লারের উপরই ভরসা রাখেন নিশ্চয়! তবে পার্লারে ব্যবহৃত কেমিকেলযুক্ত এসব পণ্য আপনার চুলের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

এতে দেখা যায়, কিছুদিন পরই চুল রুক্ষ হয়ে পড়ে যাচ্ছে। এতো সমস্যা জেনেও অনেকে আবার রং করার শখও ভুলতে পারছেন না! এক্ষেত্রে চাইলেই কিন্ত আপনি পছন্দমতো চুলে রং করে নিতে পারবেন বাড়িতেই। ঘরে থাকা চা কফিতেই বদলে ফেলুন আপনার চুলের রং। কীভাবে কী করবেন?

জেনে নিন পদ্ধতি-

> এজন্য আপনার চুলের দৈর্ঘ্য বুঝে কিছু তাজা মেহেদি পাতা নিয়ে নিন। মেহেদির গুঁড়াও ব্যবহার করতে পারবেন। হাঁড়িতে পানি দিয়ে তাতে মেহেদি পাতা, চায়ের পাতা আর কিছুটা কফি জ্বাল করুন। পানির রং বদলে কমে এলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন। এবার এটি আপনার চুলে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। সপ্তাহে তিনবার ব্যবহার করুন। এতে আপনার চুলে বাদামি আভা দেবে।

> মেহেদি পাতা পেস্ট করে বা মেহেদির গুঁড়ার সঙ্গে এই পানি মিশিয়ে প্যাক বানিয়েও চুলে লাগাতে পারেন। এতে লালচে বাদামি রং ধারণ করবে আপনার চুল। এই প্যাক লাগিয়ে দুই ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে নিন।
> আবার চুল লাল রং করতে চাইলে বিট বা গাজরের রস ব্যবহার করতে পারেন। নারকেল তেলের সঙ্গে বিটের রস মিশিয়েও চুলে লাগাতে পারেন। একটু হালকা ভিন্ন রং পেতে ব্যবহার করতে পারেন গাজরের রস। প্রথমে গাজর কুচি করে কেটে নিন। এরপর পেস্ট বানিয়ে নারকেল তেল বা অলিভ তেলের সঙ্গে মিশিয়ে মাথায় লাগিয়ে রাখুন দুই ঘণ্টা। তারপর চুলে শ্যাম্পু করে নিন।

মনে রাখবেন-

> ঘরোয়া পদ্ধতিতে চুল রং করলে চুলে বেশি হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করবেন না।
>চুল ধোয়ার ক্ষেত্রে অতিরিক্ত কেমিক্যাল যুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করা যাবে না।
>গরম পানি চুলে ব্যবহার করা যাবে না।

Check Also

টাক পড়া রুখতে পারে লালশাক!

লাল শাকের মধ্যে কিছু প্রয়োজনীয় উপাদান থাকে যা শরীরের জন্যে অত্যন্ত উপকারী। ৩০ বছর বয়সের …