লকডউনেও যানজট ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়

লকডাউনেও যানজট ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জেলা শহরের বাণিজ্যিক এলাকায় পরিলক্ষিত হয় স্বাভাবিক চিত্র। যানবাহন আর মানুষের ঠাসাঠাসি ভিড়। শহরের কে দাশ মোড়ে গাড়ির চাপে যানজটও সৃষ্টি হয়।

শহরের সড়ক বাজার, জগৎ বাজার, মসজিদ রোড, নিউ সিনেমা রোড, নিউমার্কেট রোডসহ শহরের পূর্বপাশের এলাকা জুড়ে দেখা গেছে এ চিত্র। শুধু যানবাহন আর মানুষের গাদাগাদি নয় খোলা রয়েছে সব ধরনের দোকানপাটও।

সড়ক বাজারে ক্রোকারিজের দোকানও খোলা। শহরের অন্যতম আনন্দবাজার, ফারুকী বাজার, মেড্ডা বাজার, কাউতলী ও বর্ডারবাজারে প্রতিদিনই থাকে উপচে পড়া ভিড়। রোজার দুই দিন আগে সেই ভিড়ের মাত্রা বেড়েছে অনেক। যানবাহনের চাপে কে দাশ মোড় ও ছাতিপট্টিরোড ও সড়ক বাজার রোডে যানজটও সৃষ্ট হয়। তবে লকডাউনের মধ্যে এমন চিত্রে উদ্বেগ রয়েছে সচেতন মানুষের।

১১ এপ্রিল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান। লকডাউন ঘোষণায় এ জেলায় অন্য জেলার জনসাধারণের প্রবেশ ও প্রস্থান নিষিদ্ধ করা হয়। বলা হয় পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত জাতীয় ও আঞ্চলিক সড়ক-মহাসড়ক এবং নৌপথে অন্য কোনও জেলা থেকে কেউ এ জেলায় প্রবেশ করতে কিংবা এ জেলা থেকে অন্য কোনও জেলায় গমন করতে পারবেন না।

জেলার অভ্যন্তরে আন্তঃউপজেলা যাতায়াতের ক্ষেত্রেও একই রকম নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকার এবং সকল ধরনের গণপরিবহন, জনসমাগম বন্ধ থাকার কথা বলা হয়। এ আদেশ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও উল্লেখ করা হয় ঘোষণায়। এরই মধ্যে সরাইলে লাখো লোকের সমাগমে জানাজার নামাজও হয়েছে মাওলানা যোবায়ের আহমেদ আনসারীর।

এদিকে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিনই। তিন চিকিৎসকসহ এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩১ জন। মারা গেছেন দুইজন। আইসোলেশনে রয়েছেন ২৬ জন। গেল ১০ মার্চ থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্যে পাঠানো শুরু হয়। এ পর্যন্ত ৭০২ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্যে পাঠানো হয়েছে।

Check Also

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের পর আত্মহত্যা বলে চালানোর অভিযোগ

নওগাঁর পত্নীতলায় অনুমোদনহীন নজিপুর ইসলামিয়া ক্লিনিক এন্ড ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার রিসিপসনিস্ট পদে কর্মরত তানিয়া আকতার …