সারাদিন কাজের শেষে কোমর ব্যথা? সমাধান জেনে নিন

বাড়িতে বসেই অফিসের কাজ করতে হচ্ছে বেশিরভাগ কর্মজীবীকে। বাড়িতে বসে টানা কাজ করার অভ্যাস নেই অনেকেরই। আবার বাড়িতেই বন্দি থাকার কারণে হাঁটাচলা হয় না খুব একটা। তাই দিনশেষে যোগ হয় কোমর ব্যথা। এটি পাত্তা না দিলে আপনি আরও বেশি সমস্যায় ভুগতে পারেন।

কোমরে ব্যথা অনেক সময়ে নানা অসুখের কারণেও হতে পারে, তাই সেটাকে গুরুত্ব দিয়েই দেখা উচিত। কিন্তু বেশ কিছুদিন চেয়ারে বসে কাজ করার পর যারা কোমরে ব্যথায় ভুগছেন, তাদের বসার ভঙ্গী ঠিক করা জরুরি।

যেকোনো চেয়ারে বসে কাজ করার সময়েই পিঠ একেবারে সোজা রাখতে হবে। বাড়িতে বসে যখন কাজ করছেন, তখন সেটি ঠিক রাখা সম্ভব হচ্ছে না সব সময়। আপনি হয়তো কুঁজো হয়ে যাচ্ছেন বা বিছানায় উপুড় হয়ে শুয়ে কাজ করছেন- এসবই আপনার পিঠ ও কোমরের ব্যথার কারণ।

টানা ঘণ্টাখানেক কাজ করার পর অন্তত মিনিট দশেক বিরতি নিয়ে একটু হাঁটাচলা করে নেওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ টানা বসে থাকাটা এমনিই আমাদের পিঠ, কোমর, শরীরের নিচের দিকের জন্য খারাপ। পিঠ বেঁকিয়ে বা কোলে বালিশ নিয়ে বসে কাজ করা চলবে না একেবারেই।

কোমরে ব্যথা হলে কিন্তু চটজলদি কোনো ব্যায়াম করে সেটা কমানোর চেষ্টা করে লাভ হবে না। এটি সারানোর জন্য আপনাকে পরিপূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে।

কোমার ব্যথা দূর করতে ঠান্ডা সেঁক দিন প্রথমে, একটু কমলে ঠান্ডা-গরম সেঁক দিতে পারেন। ব্যথা একেবারে কমে গেলে তারপর না হয় আপনার ব্যায়ামের রুটিনে ফিরবেন। তবে সবকিছুর আগে পিঠ সোজা করে বসার অভ্যাস তৈরি করতে হবে।

বাড়িতে সারাদিন থাকার কারণে সবারই একটু বেশি খাওয়াদাওয়া হচ্ছে, সেই তুলনায় হাঁটাচলা হচ্ছে না। ওজন বাড়তে আরম্ভ করলে কিন্তু কোমরই শুধু না, শরীরের অন্যত্রও ব্যথা আরম্ভ হবে। তাই ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে ও সুস্থ থাকতে পরিমিত খাবার খাওয়াও সমান জরুরি।

Check Also

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে দারুচিনি

খাবারের স্বাদ ও সুগন্ধ বাড়াতে দারুচিনি একটি পরিচিত মশলা। এর সুগন্ধ মনকাড়া। কিন্তু এই মশলাই …