Advertisements

লকডাউনে একসঙ্গে সময় কাটছে অঙ্কুশ-ঐন্দ্রিলার

image-158914-1589806904 লকডাউনে একসঙ্গে সময় কাটছে অঙ্কুশ-ঐন্দ্রিলার

প্রায় দু’মাস হতে চলল অঙ্কুশের বাড়িতে এসে আটকে পড়েছেন ঐন্দ্রিলা সেন। লকডাউন ঘোষণা হওয়ার দিন অঙ্কুশের বাড়িতেই ছিলেন অভিনেত্রী। তারপর থেকে বাড়ি ফিরতে পারেননি। তবে শাপে বর হয়েছে বলা যায়। কারণ দু’জনে একসঙ্গে সময় কাটাতে পারছেন।

ঐন্দ্রিলা অবশ্য বলছেন, আমাদের দু’জনের কোনও দিনই গদগদ প্রেমের সম্পর্ক নয়। একসঙ্গে আড্ডা, ঘোরাফেরা, পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে ভালোবাসি। এখনও সেটাই করছি। আমি আর মা এখানে এসে আটকে পড়েছি। চলে যাব ভেবেছিলাম। কিন্তু কাকু-কাকিমা (অঙ্কুশের মা-বাবা) কিছুতেই যেতে দিলেন না। এই পরিস্থিতিতে আমাদের একা ছাড়তে চাইছেন না। এত দিন এখানে আটকা পড়ে একটু তো অস্বস্তি হচ্ছে। আমাদের বাড়িটাও এত দিন বন্ধ পড়ে আছে। এখানে আমার জামাকাপড়ও প্রায় নেই। রোজ একই জামা কেচে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে পরছি।

আর সময় কাটছে কী করে? কখনও ঘরের কাজ করে, তো কখনও রান্নাঘরেও টুকিটাকি কাজে সময় কেটে যাচ্ছে ঐন্দ্রিলার। মার্চের শেষেই ইউরোপ টুরে যাওয়ার কথা ছিল দু’জনের। সেটা যাওয়া না হলেও অন্তত একসঙ্গে থাকতে পারছেন তারা।

দু’জনেই ওয়েব সিরিজ়ের ভক্ত। তাই অনেকটা সময় কেটে যাচ্ছে সিরিজ় দেখে। ঐন্দ্রিলার কথায়, আমাদের একসঙ্গে সময় কাটানো মানে সিরিজ় দেখা। ‘মানি হাইস্ট’, ‘ক্রিমিনাল জাস্টিস’, ‘অসুর’… এগুলো সব দেখা হয়ে গিয়েছে। আর আমার পোষ্যও যেহেতু এখানে আছে, আমাদের পোষ্যদের নিয়েই অনেকটা সময় কেটে যায়। বিকেলের দিকে ওদের নিয়ে কমপ্লেক্সের নীচে নামি। ওদের একটু হাঁটিয়ে নিয়ে আসি।

Advertisements

তবে পরিবারকেও সঙ্গ দেন দু’জনেই। সন্ধ্যা হলেই লুডু নিয়ে বসে পড়েন পরিবারের সকলে। অঙ্কুশের কথায়, এই লুডুর ঘুঁটি আমায় খুব সাহায্য করেছে। ঐন্দ্রিলার মা আর আমার সম্পর্ক অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। আমি খুব লাজুক। ঐন্দ্রিলার মতো চট করে মিশতে পারি না। ও যেমন বরাবরই আমার মায়ের খুব ক্লোজ়। আমি বরং গুটিয়ে থাকতাম। কাকিমার সঙ্গে অত কথা হতো না এতটা সময় উনি সামনে থাকছেন বলে সেই আড় ভেঙে গিয়েছে।

সম্পর্ক যে পোক্ত হচ্ছে এই কোয়ারেন্টিনে, তাতে সন্দেহ নেই। কিন্তু এত দিন শুটিং বন্ধ, বাড়িতে বসে বেশ চিন্তিত ঐন্দ্রিলা।

‘আমরা কাজের মানুষ। এ ভাবে বাড়িতে বসে থাকতে ভালো লাগছে না। তার পরে ইন্ডাস্ট্রির অনেকের হাতেই টাকা-পয়সা নেই। নিজের চেনাজানার মধ্যে যারা আছেন, তাদের হয়তো সাহায্য করছি এখন। কিন্তু কতদিন সাহায্য করতে পারব জানি না।’’

তবে ভরসা জোগাচ্ছেন অঙ্কুশ। অভিনেতা সদ্য শুটিং শেষ করেছেন ‘কেস জন্ডিস’র। তার স্ট্রিমিংও শুরু হয়ে গিয়েছে। ‘একটু একটু করে কাজ শুরু হচ্ছে। আর আমার ভিডিও’র ডিওপিতে ঐন্দ্রিলার নাম যাচ্ছে’, বলেই হাসলেন অঙ্কুশ।

সেই পর্যন্ত নিজেকে তো পজ়িটিভ থাকতেই হবে। তার জন্য কখনও অভিনেতা ‘ঘুঙরু’র তালে নেচে উঠছেন, কখনও ঐন্দ্রিলার সঙ্গে মজার ভিডিও শুট করছেন। এ ভাবেই কোয়ারেন্টিনে চলছে নতুন সংসারের ট্রায়াল।

Advertisements

Check Also

বিয়ে আল্লাহর দেওয়া নেয়ামত: শবনম ফারিয়া

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি তামিমা তাম্মি নামে এক নারীকে বিয়ে করেন ‘ব্যাডবয়’ খ্যাত ক্রিকেটার নাসির হোসেন। …