সতর্কতা ও নজরদারি নিশ্চিত না করে লকডাউন শিথিলের ফল ভয়াবহ: বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা

লকডাউন শিথিলের পর বিভিন্ন দেশে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও) জানিয়েছে, প্রয়োজনীয় সতর্কতা ও কড়া নজরদারি নিশ্চিত না করে লকডাউন প্রত্যাহারের ফলাফল হবে ভয়াবহ।

সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় স্থানীয় সময় সোমবার সংস্থার সদর দপ্তরে ইমার্জেন্সি প্রোগ্রামের প্রধান ডা. মাইক রায়ান এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেডরস আধানম গেব্রিয়াস এসময় তার সঙ্গে ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে ডা. মাইক রায়ান বলেন, প্রায় তিন লাখ প্রাণ কেড়ে নেওয়ার পরে করোনাভাইরাসের প্রথম দফার সংক্রমণের তীব্রতা ক্ষীণ হয়েছে বেশ কিছু দেশে। এতে আশাবাদি হয়ে কয়েকটি দেশ ইতিমধ্যেই লকডাউন তুলে নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে । কিন্তু মনে রাখতে হবে ভাইরাসটি চরিত্র বদলাচ্ছে ক্ষণে ক্ষণে। পরিবেশে টিকে থাকা শক্তি অর্জন করছে। আগামীতে এটি কিভাবে আবির্ভূত হবে তা আমরা জানি না। এ পরিস্থিতিতে লকডাউন শিথিলের আগে থেকেই কড়া নজরদারি ও চরম সতর্ক অবস্থান নেওয়ার কোনো বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, কয়েকটি দেশে লকডাউন শিথিল করায় পুনরায় সংক্রমণ বেড়েছে। নতুন করে গুচ্ছ (ক্লাস্টার) সংক্রমণ শুরু হয়েছে। দেশ সচল রাখার স্বার্থেই অবশ্যই লকডাউন তুলে নিতেই হবে। কিন্ত তার আগে প্রয়োজনীয় সতর্কতামূলক পদক্ষেপগুলো গুরুত্বের সঙ্গ বাস্তবায়ন করতে হবে। ক্লাস্টারগুলোতে সুপ্ত থাকা ভাইরাসটি আবার আক্রমণ করবে পুরোদমে, এমন ঝুঁকি থেকেই যায়।

এসময় বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান প্রধান ডা. টেড্রোস আধানম গেব্রেয়েসুস বলেন, লকডাউন তুলে নেয়ার আগে করোনার সংক্রমণের বিষয়টি মাথায় রেখে আরো বেশি সতর্ক থাকা উচিৎ ছিল। জার্মানিতে করোনায় মৃত্যু কম থাকায় লকডাউন শিথিল করা হয়। তবে এর কিছুদিনের মধ্যেই সংক্রমণ বাড়তে থাকে। করোনা রোধে সফল দেশ দক্ষিণ কোরিয়াতেও লকডাউন তুলে নেয়ার পর বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। বিশেষ করে নাইট ক্লাবে যাওয়া মানুষদের করোনায় আক্রান্তের হার বেড়েছে। চীনের উহানেও ফের গুচ্ছ সংক্রমণ দেখা দিয়েছে।

তিনি বলেন, পরিস্থিতি এখন অত্যন্ত জটিল এবং কঠিন। মানুষের প্রাণ বাঁচানোর জন্য খুব ধীরে ধীরে তুলতে হবে লকডাউন। কড়া নজর রাখতে হবে ঘটনাক্রমের উপর। হুট করে লকডাউন তুললে বিপদ আরও তীব্র হয়ে ফিরে আসতে পারে।
যতক্ষণ না কোনো টিকা আবিষ্কার হচ্ছে ততক্ষণ সতর্কতামূলক নানা পদক্ষেপের মাধ্যমে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখার কোনো বিকল্প নেই বলেও মনে করেন আধানম।

Check Also

গরমকালের বউ, মাত্র ২০ দিনের জন্য

মুসলিম পুরুষদের শর্ত সাপেক্ষে চার স্ত্রী গ্রহণের বিধান রয়েছে ইসলাম ধর্মে। তাই বলে কেবল গ্রীষ্মকালের …