স্বামীর ঘর ছেড়ে প্রেমিকের সঙ্গে পালাতে গিয়ে এত কিছু!

স্বামীর ঘর ছেড়ে প্রেমিকের সঙ্গে পালাতে গিয়ে অভিনব পন্থা বেছে নিয়েছিলেন নাটোরের গৃহবধূ মুক্তিয়ারা। তিনি তাঁর নিজের ছবির লাশ বানিয়ে সামাজিক যোগযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন এবং হত্যার কাহিনি ফেঁদেছিলেন। কিন্তু পুলিশ তাঁকে জীবিতই উদ্ধার করে। সঙ্গে গ্রেপ্তার করে কথিত প্রেমিককেও।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নাটোর পুলিশ অফিস চত্বরে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা এসব তথ্য জানান।

পুলিশ সুপার বলেন, পাবনার ঈশ্বরদীতে কর্মরত ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি আকমল হোসেনের স্ত্রী মুক্তিয়ারার সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রেমের সম্পর্ক হয় ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়ার ক্যাবল ব্যবসায়ী আবিদের। গত ১১ মে স্বামীর বাড়ি থেকে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার বাবার বাড়ি যাওয়ার জন্য রওনা হন গৃহবধূ মুক্তি। স্বামী আকমল হোসেন মুক্তিকে নাটোরের রাজাপুর পর্যন্ত পৌঁছে দেন।

‘বাবার বাড়ি না গিয়ে পরিকল্পনা অনুযায়ী মুক্তি হাটিকুমরুল এলাকায় অপেক্ষমাণ প্রেমিকের সঙ্গে ময়মনসিংহ পালিয়ে যান। সেখান থেকে ওই গৃহবধূ নিজের হত্যা করা সাজানো লাশের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করে।’

এই অবস্থায় মুক্তির স্বামী নাটোরের বড়াইগ্রাম থানায় মামলা করলে অভিযানে নামে জেলা পুলিশ। গতকাল বুধবার রাতে তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তার তাদের আটক করা হয়।

Check Also

অভিজাত এলাকায় বিচরণ ডিজে নেহার, চলত উদ্যাম নৃত্য

ছবি: ভিডিও থেকে সংগৃহীত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে অতিরিক্ত মদপান করিয়ে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় …