Advertisements

অনুমতি ছাড়া গান প্রকাশ করে আবারো বিতর্কে নোবেল

nobel অনুমতি ছাড়া গান প্রকাশ করে আবারো বিতর্কে নোবেল

গীতিকার ও সুরকারের বিনা অনুমতিতে গান প্রকাশ করে আবারো বিতর্কের মুখে পড়েছেন সমালোচিত সংগীতশিল্পী মাইনুল আহসান নোবেল। গত সোমবার (১৫ জুন) নোবেল তার নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে ‘বাংলা মিলবে কবে’ গানটি প্রকাশ করেন। এর গীতিকার ও সুরকার কলকাতার সৈকত চ্যাটার্জি। তিনি গানটি প্রকাশ করতে বারণ করলেও তা উপেক্ষা করে নোবেল গানটি প্রকাশ করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন সৈকত।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে সৈকত বলেন—নোবেল ভারতে থাকা অবস্থায় আমার কাছে একটি গান চেয়েছিল। আমি এই গানটি ওকে দিয়েছিলাম। কথা ছিল, ২০২০ সালের আন্তর্জাতিক ভাষা দিবসে গানটি মুক্তি পাবে। কিন্তু তখন প্রকাশ করা হয়নি। কিছু দিন আগে আমাদের প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে নোবেল বাজে মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়েছিল। তখন ওকে বলেছিলাম ক্লিনচিট না পেলে এ গান ব্যবহার না করতে। কিন্তু শুনল না।

Advertisements

সবার প্রতি প্রশ্ন রেখে সৈকত বলেন, এ গানের জন্য ৩০ হাজার টাকা চেয়েছিলাম। কিন্তু নোবেল আমাকে দশ হাজার টাকা দেয়। এই ১০ হাজার টাকাও ফেরত দিতে চেয়েছি। কিন্তু নোবেল কোনো কথাই শুনেনি। আমার প্রশ্ন হলো—আপত্তি থাকা সত্ত্বেও এভাবে গানটি প্রকাশ করা কি ঠিক হলো?

এ বিষয়ে মন্তব্য জানার জন্য নোবেলে মুঠোফোনে চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।

এবারই প্রথম নয়, গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর নোবেল তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ ও ইউটিউবে ‘দেশ’ শিরোনামে একটি গান প্রকাশ করেন। গানটির কথা ও সুর নিজের বলে দাবি করেন। এরপর নোবেলের বিরুদ্ধে এই গান চুরির অভিযোগ তুলেন ব্যান্ডদল ‘অ্যাবাউট ডার্ক’।

২০১৮ সালেও নোবেল এই গানটি নিজের দাবি করে প্রকাশ করেছিল। তখন সমালোচনার মুখে পড়ে গানটি সরিয়ে নিতে বাধ্য হয়। শুধু তাই নয়, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে নোবেল ক্ষমা চেয়েছিল বলেও জানান ‘অ্যাবাউট ডার্ক’ ব্যান্ডের সদস্য পূর্ণ।

Advertisements

Check Also

বিয়ে আল্লাহর দেওয়া নেয়ামত: শবনম ফারিয়া

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি তামিমা তাম্মি নামে এক নারীকে বিয়ে করেন ‘ব্যাডবয়’ খ্যাত ক্রিকেটার নাসির হোসেন। …