এক মাসেই চুল বড় হবে আদার রসে!

বর্তমানে অনেকেই চুল লম্বা করতে চাইলেও তা বড় হয় না। এর কারণ হলো সবাই কমবেশি কেমিকেলযুক্ত পণ্য চুলে ব্যবহার করে থাকে। আবার যারা চুলে কালার করে কিংবা রিবন্ডিং করে তাদের ক্ষেত্রে চুল কম বৃদ্ধি পায়। পাশাপাশি চুল তার উজ্জ্বলতাও হারায়। এজন্য যদি সত্যিই চুল বড় করতে চান তবে অবশ্যই প্রাকৃতিক উপায়ে ভরসা রাখুন। বাজারচলতি বিভিন্ন হেয়ার গ্রোথ পণ্য কখনো চুলে ব্যবহার করবেন না। শারীরিক সুস্থতা বজার রাখতে আদা কতটা উপকারী তা সবারই জানা আছে! এই উপাদানটি চুলের জন্য উপকারী।

জেনে নিন তবে আদার মাধ্যমে চুলের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করবেন কীভাবে-

স্বাস্থ্যকর চুল মানে চুলের গোড়া সুস্থ রাখা। চুলের বৃদ্ধির জন্য মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ানো জরুরি। এতে চুলে পুষ্টি উপাদান ছড়িয়ে পড়ে। আদায় থাকে জিঞ্জারল নামক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা মাথার ত্বককে প্রভাবিত করে। পাশাপাশি চুলের কোষ ক্ষতিকারক উন্মুক্ত রেডিকেলের বিরুদ্ধে কাজ করে চুল পাতলা হওয়া অর্থাৎ পড়ে যাওয়া কমায়। টানা এক মাস চুলে আদার রস ব্যবহার করলে চুল বাড়বেই।

অনেক সময় দূষণ, সূর্যরশ্মি ও জীবন যাত্রার কারণে চুল তার উজ্জ্বলতা হারিয়ে ফেলে। খনিজ, পুষ্টি ও অত্যাবশ্যকীয় তেল সমৃদ্ধ আদা প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে। চুলের রুক্ষতা ও মলিনতা দূর করতে আদা ব্যবহার করা যায়। এর কন্ডিশনিং উপাদান চুল আর্দ্র রাখে ও কিউটিকেল মসৃণ করে রুক্ষতা ও কোঁকড়াভাব দূর করে মোহনীয়ভাব ফুটিয়ে তোলে।

গরমে মাথার ত্বক ঘেমে নানা সমস্যা দেখা দেয়।এছাড়াও চুলের স্বাস্থ্য খারাপ হওয়ার পেছনে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে খুশকি। যার ফলে চুল পড়ার সমস্যা দেখা দেয়। আদার প্রদাহ নাশক ও অ্যান্টিসেপ্টিক উপাদান এই সময় মাথার ত্বক পরিষ্কার ও সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

Check Also

করোনাভাইরাস কি চুলেও বেঁচে থাকতে পারে?

করোনাভাইরাস নিয়ে বিশ্বজুড়ে গবেষণা চলছে। গবেষকরা ভাইরাসটি কীভাবে আচরণ করে তা নিয়ে গবেষণা করছেন। এটি …