কিটো ডায়েটের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলো কী?

কিটো ডায়েট বেশ অল্প সময়ের ভেতরেই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। ওজন কমাতে চাচ্ছেন এমন বেশিরভাগ মানুষই এখন এই ডায়েট মেনে চলার চেষ্টা করছেন। কিটো ডায়েট হলো নিম্ন-কার্ব জাতীয় খাবার যা আপনার ওজন দ্রুত হারে কমিয়ে দেয়। যদিও, সতর্ক থাকার জন্য জেনে রাখা জরুরি যে, এই ডায়েটটি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও নিয়ে আসে। মূলত, কেটো ডায়েটে ৮০% ফ্যাট, ১৫% প্রোটিন এবং কার্বোহাইড্রেট থেকে ৫% কম ক্যালোরি থাকে। টাইমস অব ইন্ডিয়া কিটো ডায়েটের কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা প্রকাশ করেছে-

আপনি কিটো ফ্লুতে আক্রান্ত হতে পারেন
আপনি যখন কার্বস কমিয়ে ফেলেন তখন শরীর শক্তির জন্য ফ্যাট পোড়াতে শুরু করে। এর কারণে মাথাব্যথা, বমি বমি ভাব, ক্লান্তি এবং ডায়রিয়া দিতে পারে। আপনার শরীর শক্তির প্রাথমিক উৎস হিসাবে কার্বসের পরিবর্তে চর্বি ব্যবহার করে, ফলে এই পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলো দেখা দেয়। শরীর একবার এই নতুন জ্বালানির উৎসের সাথে খাপ খাইয়ে নেয়া শুরু করলে আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে আরও ভালো অনুভব করবেন।

হঠাৎ ওজন বেড়ে যেতে পারে
কার্বস ফ্যাট এবং প্রোটিনের চেয়ে বেশি পানি ধরে। তাই কিটো ডায়েট দ্রুতই আপনাকে স্লিম করে দেয়। আপনি যখন কার্বস খাওয়া বন্ধ করেন, তখন সমস্ত অতিরিক্ত পানি প্রস্রাবের মাধ্যমে নিঃসৃত হয়। যার কারণে আপনার ওজন স্কেল থেকে কয়েক পাউন্ড কমে যায়। যারা কিটো ডায়েট অনুসরণ করে তাদের এমন কঠোর পরিকল্পনার সাথে লেগে থাকা বেশ শক্ত মনে হয়। আপনি যদি এই ডায়েট কখনো এলোমেলোভাবে মেনে চলেন বা থামিয়ে দেন, তবে দ্রুত ওজন বাড়তে শুরু করবে।

কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে
এটি এই ডায়েট পরিকল্পনার একটি সাধারণ পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া যা কম কার্বসের কারণে হতে পারে। মটরশুটি, আস্ত শস্য, বেশিরভাগ ফল এবং শাকসবজি জাতীয় উচ্চ ফাইবারযুক্ত খাবারগুলো খাবার তালিকা থেকে বাদ দেয়ায় এমনটা হতে পারে। এর পাশাপাশি শরীরে পানির পরিমাণ হ্রাস পায়, যার কারণে কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দিতে পারে। কোষ্ঠকাঠিন্যর সমস্যা দূর করার জন্য বাদাম, অ্যাভোকাডো এবং স্টার্চবিহীন শাকসবজিগুলো আপনার কিটো ডায়েটে অন্তর্ভূক্ত করতে পারেন।

আপনি সারাক্ষণ তৃষ্ণার্ত বোধ করতে পারেন
এতক্ষণে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন যে, আপনি যখন কিটো ডায়েট মেনে চলেন তখন আপনারওজন হ্রাস পেতে শুরু করে। তাই তৃষ্ণার্ত অনুভূত হওয়া এই ডায়েটের আরও একটি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া। সাধারণভাবে পর্যাপ্ত পানি পান করার চেষ্টা করুন যাতে আপনার প্রস্রাব পরিষ্কার হয়।

আপনি ক্ষুধা হারাতে পারেন
আপনি যখন ওজন কমানোর চেষ্টায় থাকেন, তখন স্বাভাবিকভাবেই ক্ষুধা বেড়ে যায়। কিন্তু কিটো ডায়েটে তেমনটা হয় না। এক্ষেত্রে আপনি কম ক্ষুধার্ত বোধ করবেন এবং কোনো খাবারের প্রতি বিশেষ আকর্ষণ অনুভব করবেন না। এই ডায়েট ক্ষুধা বাড়ানোর হরমোনের উৎপাদন কমিয়ে দেয়।

আপনার ত্বকে পরিবর্তন আসতে পারে
একবার কিটো ডায়েট শুরু করার পরে শীঘ্রই আপনার ত্বকে পরিবর্তন লক্ষ করতে শুরু করবেন। উচ্চ-কার্ব ডায়েট গ্রহণের ফলে ব্রণ এবং পিম্পলগুলো আরও খারাপ আকার ধারণ করতে পারে। যেহেতু আপনার ডায়েট কার্বস দেয় না তাই আপনার ত্বক পরিষ্কার হতে শুরু করবে এবং এটি আপনার ব্রণ এবং পিম্পল সমস্যা সমাধানে সহায়তা করবে।

Check Also

যে খাবারগুলো এড়িয়ে গেলে স্থায়ীভাবে নিরাময় হবে পাইলস!

আমাদের মধ্যে অনেকেই যন্ত্রণাদায়ক পাইলসের সমস্যায় ভুগে থাকেন। নানাভাবে এর থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার চেষ্টাও করেন। …