বিরাট-আনুশকার ডিভোর্সের গুঞ্জন নিয়ে তোলপাড়

ভারতের আলোচিত তারকা দম্পতি বিরাট কোহলি ও আনুশকা শর্মা দীর্ঘদিন চুটিয়ে প্রেম করে রাজকীয়ভাবে বিয়ে করেন। এতোদিন ভালোইতো যাচ্ছিলো তাদের দাম্পত্যজীবন-সংসার। হঠাৎ তাহলে কী হলো? গেল শুক্রবার রাত থেকে টুইটারে ট্রেন্ডিং বিরুষ্কাডিভোর্স হ্যাশট্যাগ নিয়ে তুমুল হৈচৈ পড়ে যায়।
বিরুষ্কার ডিভোর্সের আলোচনা চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে আসে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক নন্দকিশোর গুজ্জরের এক আজব দাবিকে কেন্দ্র করে।

ভারতীয় একটি গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, আনুশকা প্রযোজিত ওয়েব সিরিজ পাতাললোক ‘দেশবিরোধী’ বলে তোপ লাগিয়েছিলেন গুজ্জর। ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কের উচিত আনুশকার সঙ্গে দাম্পত্য সম্পর্কে ইতি টানা, এমনও মন্তব্য করেছিলেন উত্তরপ্রদেশের লোনির এই বিধায়ক।

গুজ্জর বলেন, ‘বিরাট কোহলি দেশভক্ত, দেশের জন্য ও খেলে। আনুশকাকে ডিভোর্স দিয়ে দেওয়া উচিত।’

বিরুষ্কাডিভোর্স হ্যাশট্যাগ ট্রেন্ডিং হওয়ার পর অনেকে ভাবতে শুরু করেন, সত্যিই কি তবে বিচ্ছেদের পথে হাঁটতে চলেছেন বিরাট-আনুশকা!

অবশ্য পরে জানা যায়, এই ট্রেন্ডের সূত্রপাত বিরুষ্কার বিচ্ছেদের একটি পুরোনো খবরকে ঘিরে। বিয়ের আগে একবার দুজনের বিচ্ছেদ নিয়ে জল্পনা চলেছিল।

শোনা গিয়েছিল, শাহরুখ খান দুজনের সঙ্গে কথা বলে ভুল বোঝাবুঝি মিটিয়ে দিয়েছিলেন। শাহরুখ নাকি আনুশকার ঘনিষ্ঠ এবং অভিনেত্রীর প্রথম সিনেমাও কিং খানের সঙ্গে। ফলে শাহরুখই সংকট মোকাবিলায় এগিয়ে এসেছিলেন। ২০১৬ সালে প্রকাশিত সেই পুরোনো প্রতিবেদনের কপি ঘিরেই নতুন করে এই হ্যাশট্যাগ ভাইরাল হয়!

Check Also

সেই অভিনেত্রী করলেন কী?

বলিউড অভিনেত্রী সানা খান। তবে কিছুদিন আগে শোবিজ জগত থেকে বিদায় নিয়েছেন। এরপর সম্প্রতি বিয়ের …