যেভাবে চলবে রেড জোন এলাকা

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য আগের মতোই গণপরিবহন ও সরকারি বেসরকারি অফিস আদালত সীমিত করে এবং জনসাধারণের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হচ্ছে। ১৫ জুন এ নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হচেছ। এ বিষয়ে যে কোনো সময় প্রজ্ঞাপন জারি করবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। জনপ্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়লেও একসঙ্গে সারাদেশ লকডাউনের দিকে যাচ্ছে না সরকার। সাধারণ ছুটিও নয়, বরং সংক্রমণের সর্বোচ্চ হার বিবেচনা করে রেড জোন এলাকাগুলোতে লকডাউন কার্যকর করা হবে। আর এসব রেড জোনে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হবে। এসব এলাকায় গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকবে। খুবই জরুরি ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়া যাবে না। দোকান পাট সীমিত খোলা রাখা যাবে। শতভাগ লকডাউন কার্যকর করা হবে। রেডজোন এলাকাগুলোর জন্য নতুন কিছু নির্দেশনা থাকবে। এসব নির্দেশনা মেনে সবাইকে চলতে হবে।

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন রোববার (১৪ জুন) দুপুরে বলেন, আমরা সারাদেশে একসঙ্গে লকডাউন করবো না। জোন ভিত্তিক/এলাকাভিত্তিক লকডাউন হবে। রেড জোনে লকডাউন করা হবে। আর সেখানে সরকারি ছুটি থাকবে। জরুরি সার্ভিস ছাড়া কিছুই চলবে না। এভাবে লকডাউন কার্যকর করে আমরা সংক্রমণ কমিয়ে আনবো।

তিনি জানান, যেহেতু করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। আমরা নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য রাখবো। আগের মতোই গণপরিবহন ও অফিস আদালত চলবে। জনগণের চলাচলও সীমিত থাকবে। করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার গণপরিবহন ও অফিস আদালত সীমিত করে ১ থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত জনসাধারণের চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়।

Check Also

বরিশালের বিভিন্ন সড়কে ‘Sorry’ লেখা নিয়ে রহস্য!

বরিশাল নগরীর বেশ কয়েকটি সড়কে রঙ দিয়ে ইংরেজিতে ‘Sorry’ শব্দ লেখা নিয়ে ইতোমধ্যে রহস্যের সৃষ্টি …