শরীরের যে ৭ জায়গা আপনি পর্যাপ্ত পরিষ্কার করছেন না

করোনভাইরাস মহামারীর কারণে আমরা সবাই স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে আরও সতর্ক হয়েছি। ঘন ঘন হাত ধোয়া, মাস্ক পরা থেকে শুরু করে সামাজিক দূরত্ব অনুশীলন করা পর্যন্ত মানুষেরা এমনসব সতর্কতা অনুসরণ করছে যা মারাত্মক করোনভাইরাসকে দূরে রাখতে পারে। যদিও হ্যাঁ, আমরা সবাই ঘন ঘন হাত ধুয়ে নিই, তবে শরীরের কিছু অংশ ভালো করে ধুয়ে নেয়া দরকার। জেনে নিন শরীরের এমন সাতটি অংশের কথা যেগুলো পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরিষ্কার করা প্রয়োজন-

স্ক্যাল্প
লম্বা চুলের কারণে মেয়েরা তাদের মাথার স্ক্যাল্প সময় নিয়ে পরিষ্কার করেন না বেশিরভাগ সময়েই। তবে পুরুষেরা এদিক থেকে এগিয়ে। ছোট চুলের কারণে কম ঝামেলায় তারা স্ক্যাল্প পরিষ্কার করতে পারেন। তবে খুশকি দূূর করতে এবং স্ক্যাল্প সুস্থ রাখতে নারী-পুরুষ উভয়েরই নিয়মিত মাথার ত্বক পরিষ্কার করা উচিত। মৃত ত্বকে ব্যকটেরিয়া ছড়াতে পারে, তাই স্ক্যাল্পের মৃত কোষ দূর করা জরুরি। খুশকি, মৃত ত্বকের কোষ থেকে মুক্তি পেতে এবং রক্তের প্রবাহকে উন্নত করতে পানি দিয়ে আপনার মাথাটি আলতোভাবে ম্যাসাজ করুন।

পিঠ
এটি ঠিক যে গোসলের সময় আপনার পিঠ ভিজে যায়। কিন্তু আপনি কি আপনার পিঠে যথেষ্ট ঘষেছেন? সম্ভবত না।একটি লুফাহ বা এক্সফোলিয়েটিং স্পঞ্জ দিয়ে পিঠ ঘষে পরিষ্কার করুন। প্রতিদিন সম্ভব না হলে ত্বকে সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে তিন-চার দিনে একবার এভাবে পরিষ্কার করুন।

নখের নিচে
নখের নিচে পরিষ্কার না করলে আপনার হাত পুরোপুরি ধোয়া হয় না। নখের নিচে ব্যাকটেরিয়া জমা হতে পারে। নখের নিচে পরিষ্কার করার জন্য সাবান-পানি দিয়ে সঠিকভাবে পরিষ্কার করুন। নরম কোনো ব্রাশের সাহায্যে নখ পরিষ্কার করতে পারেন। নিয়মিত নখ কাটলে ময়লা জমার ভয় কম থাকে।

কানের পেছনে
শরীরের এই অংশে সেবেসিয়াস গ্রন্থি অবস্থিত এবং কোণটি সিবামকে লুকিয়ে রাখে। ব্যাকটেরিয়ার জন্য সিবাম নিখুঁত লুকানোর জায়গা। সুতরাং, প্রতিদিন আপনার কানের পেছনে পরিষ্কার করা জরুরি। হালকা গরম পানিতে ডুবানো কাপড় দিয়ে কানের পেছনে হালকাভাবে ঘষে পরিষ্কার করতে পারেন।

নাভি
নাভি হলো ব্যাকটেরিয়া লুকিয়ে থাকার জন্য সেরা জায়গা। নাভি পরিষ্কার করতে সাবান পানিতে ডুবানো সুতি কাপড় ব্যবহার করুন। যদি আপনার নাভি ছিদ্রযুক্ত থাকে তবে এটি নিয়মিত পরিষ্কার করা আরও বেশি জরুরি।

জিহ্বা
আমরা মনে করি, দাঁতের স্বাস্থ্যবিধিতে দাঁত এবং মাড়ি পরিষ্কার করা অন্তর্ভুক্ত। কেউ কেউ মনে করেন জিহ্বা পরিষ্কার করার জন্য মাউথওয়াশ ব্যবহার করা যথেষ্ট, যা ঠিক নয়। জিহ্বায় ব্যাকটেরিয়া সহজেই লুকিয়ে থাকতে পারে। এটি কেবল দুর্গন্ধের কারণই নয়, এর কারণে দাঁতও ক্ষয়ে যেতে পারে। সুতরাং জিভ স্ক্র্যাপ ব্যবহার করে প্রতিদিন জিহ্বা পরিষ্কার করা জরুরি।

ঘাড়ের পেছনে
আপনার লম্বা চুল থাকলে আপনার ঘাড়ের পেছনের অংশটি উষ্ণ এবং আর্দ্র হতে পারে, এটি ব্যাকটেরিয়া এবং মাইটের জন্য উপযুক্ত জায়গা তৈরি করতে পারে। ঘাড়ের পেছনে পরিষ্কার করতে আপনি সাবান এবং পানি, ভেজা কাপড় বা একটি লুফাহ ব্যবহার করতে পারেন।

Check Also

আচমকা বলিরেখা? রোজ রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে একফোঁটা আমন্ড অয়েলেই লুকিয়ে প্রতিকার!

নিয়ম মেনেই প্রতিদিন রূপচর্চা করেন। কিন্তু শীত পড়তেই সেই অভ্যেসে পড়েছে ছেদ। সবদিন ঠিক করে …