করোনার এন্টিবডি টিকছে না, আক্রান্তের সম্ভাবনা একমাস পরেই

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করে যারা সুস্থ হয়ে উঠেছেন, তাদের দেহে গড়ে ওঠেছে এটি প্রতিরোধের ক্ষমতা ‘এন্টিবডি’। কিন্তু একমাসের মধ্যেই অনেকের দেহে গড়ে ওঠা এই এন্টিবডি প্রতিরোধ ক্ষমতা হারিয়ে যেতে পারে বলে নতুন এক গবেষণায় উঠে এসেছে। ওই গবেষণার বরাত দিয়ে যুক্তরাজ্যের দৈনিক দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, সাধারণ ঠাণ্ডা, জ্বর, কাশির মতোই এই রোগটিও মানুষকে বছরের পর বছর আক্রান্ত করতে পারে।

যুক্তরাজ্যের গাই’স এন্ড সেন্ট থমাস ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস ফাউন্ডেশন ট্রাস্টের ৯০ জন রোগী ও স্বাস্থ্য সেবাকর্মীর ওপর কয়েকমাস ধরে চালানো এই গবেষণায় দেখা যায়, রোগীর দেহে লক্ষণ প্রকাশের প্রায় তিন সপ্তাহ পর পর্যন্ত ওই এন্টিবডি ভাইরাসটি ধ্বংস করতে পারে তবে ধীরে ধীরে তা হ্রাস পেতে থাকে।

রক্ত পরীক্ষায় দেখা গেছে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সময় ৬০ শতাংশ মানুষের দেহে শক্তিশালী এন্টিবডি কাজ করেছিল তবে এর ৩ মাস পর মাত্র ১৭ শতাংশের দেহে ওই এন্টিবডি একইভাবে কাজ করে। আবার অ্যান্টিবডির স্তরগুলোও আগের তুলনায় ২৩ গুণ কমে যায়, অনেকক্ষেত্রে তাদের খুঁজেও পাওয়া যায় না।

এই গবেষণাদলের প্রধান লন্ডনের কিংস কলেজের অধ্যাপক ড. কেটি ডোরস বলেন, ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মানুষের দেহে মোটামুটি ঠিকঠাক মাত্রাতেই অ্যান্টিবডি গড়ে উঠেছিল তবে অল্প সময়ের ব্যবধানেই এটি কমা শুরু করে। রোগের কোন মাত্রায় শরীরে এন্টিবডি তৈরি হয়েছে তার উপর নির্ভর করে, এন্টিবডিগুলো শরীরে কতদিন অবস্থান করবে।”

দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসকে রুখে দিতে সমাজের মধ্যে ‘হার্ড ইমিউনিটি’ তৈরি করার যে পদক্ষেপের কথা ভাবা হয়েছিলো সেটির ওপর এবং ভ্যাকসিনের ডেভেলপমেন্টের ওপর যথেষ্ট প্রভাব থাকবে এই গবেষণা ফলাফলের।

করোনার বিরুদ্ধে মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা নানাভাবেই লড়াই করতে পারে। তবে সেই লড়াইয়ের সম্মুখভাগে যদি এন্টিবডি থাকে তবে এই গবেষণার ফলাফল বলছে, এন্টিবডি যেহেতু স্থায়ী হচ্ছে না তাই সিজনাল অন্যান্য অসুখের মতো মানুষ করোনাতেও বারবার আক্রান্ত হতে পারে এবং এক্ষেত্রে ভ্যাকসিন তাদের দীর্ঘ সময় রক্ষা করতে পারবে না।

অধ্যাপক ডোরস বলেন, এন্টিবডি তৈরির ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো ও কার্যকরী এন্টিবডি সংক্রমণের পর শরীরে এমনিতেই তৈরি হয়। সেক্ষেত্রে সংক্রমণ থেকে যদি দুই-তিন মাসের জন্য এন্টিবডি তৈরি হয়, ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রেও এর বেশি হওয়ার কথা না। ভ্যাকসিনের একটি শট তখন কারও জন্য পর্যাপ্ত নাও হতে পারে।

Check Also

১৪ পুরুষের সঙ্গে স্ত্রীর শারীরিক সম্পর্ক, ক্ষতিপূরণ চাইলেন স্বামী

পরকীয়ায় মেতে আছেন স্ত্রী। হঠাৎ এমন সন্দেহ হয় স্বামীর। এর জেরেই গোয়েন্দা দিয়ে খোঁজ-খবর নিলেন। …