ডিভোর্সের কারণ, জনির স্ত্রী অন্য পুরুষের সঙ্গে বিছানায় গিয়েছিল

হলিউডের নন্দিত অভিনেতা জনি ডেপ। তার ‘পাইরেটস অব ক্যারিবিয়ান’ সিরিজের ছবিগুলো বিশ্বজুড়েই তুমুল জনপ্রিয়। ২০১৬ সালে স্ত্রী অ্যাম্বার হার্ডের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের পর থেকেই সমালোচিত হয়ে যাচ্ছেন তিনি। বলা চলে সমালোচনা তার পিছুই ছাড়ছে না।

দীর্ঘ তিন বছর প্রেম করার পর ২০১৫ সালে জনি বিয়ে করেন অ্যাম্বার হার্ডকে। কিন্তু হুট করেই এক বছরের মাথায় সম্পর্কের ইতি টানেন এই তারকা দম্পতি। প্রথম দিকে জনির বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছিলেন অ্যাম্বার। যদিও সাক্ষ্য প্রমাণের অভাবে সে অভিযোগ ধোপে টেকেনি।

তারপর সাবেক স্ত্রীর বিরুদ্ধে ৪০০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেন জনি ডেপ। আর সে কারণেই কোর্টে ঘুরছেন এই তারকা দম্পতি।

এদিকে নতুন করে গত শুক্রবার আদালতে বিবাহ বিচ্ছেদের কারণ হিসেবে এক চমকপ্রদ তথ্য জানালেন ডেপ। শুনানির এক পর্যায়ে ডেপ জানান, স্ত্রী অ্যাম্বার হার্ডের বিছানায় অন্যপুরুষের অস্তিত্ব টের পেয়েছিলেন তিনি। আর এজন্যই তিনি বিচ্ছেদের মতো সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হন। জনি আরও জানান, বিছানায় অন্য পুরুষের মল পেয়েছেন তিনি। তার ক্লিনারের মাধ্যমে সে নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবেও পাঠিয়েছেন তা পরীক্ষা করার জন্য।

২০১১ সালে মুক্তি পাওয়া ‘দ্য রাম ডায়রি’ সিনেমায় একসঙ্গে অভিনয় করতে গিয়ে একে অন্যের প্রতি ভালোলাগা তৈরি হয় ডেপ ও অ্যাম্বারের। কিন্তু ডেপের দীর্ঘ ১৪ বছরের প্রেম ছিল ফরাসি অভিনেত্রী ও গায়িকা ভেনেসা পারাদিসের সঙ্গে। ২০১২ সালের জুনে সেই প্রেমের ইতি টানার ঘোষণা দেন ডেপ ও ভেনেসা।

এক যুগেরও বেশি সময় ধরে এক ছাদের নিচে বসবাস করেছেন তারা। তাদের দুটি সন্তানও আছে। সেসব অতীত পেছনে ফেলে ডেপ বিয়ে করেছিলেন অ্যাম্বারকে। আর সেই প্রেমের বিয়ে টিকলো না এক বছরও।

Check Also

আত্মগোপনে সুশান্তের বান্ধবী রিয়া

সুশান্তের বাবা কৃষ্ণ কিশোর সিংহ ছেলের বান্ধবী রিয়ার বিরুদ্ধে পটনার রাজীব নগর পুলিশ স্টেশনে একটি …