চীনা ভ্যাকসিন: দাম পড়বে যত?

চীনের ন্যাশনাল ফার্মাসিউটিক্যাল গ্রুপ সিনোফার্মের উদ্ভাবিত করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটি উচ্চ মূল্যে বিক্রি হবে না। কোম্পানিটির চেয়ারম্যান লিউ জিংজেনকে উদ্ধৃত করে দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ভ্যাকসিনটির দুই ডোজের দাম এক হাজার ইয়েনের বেশি হবে না। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ দাঁড়াবে ১২ হাজার টাকার কিছু বেশি। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সিনোফার্ম বলছে তাদের পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিনটি এই বছরের শেষ নাগাদ জনগণের ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া যাবে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতা ও নিরাপত্তা নিয়ে চূড়ান্ত ধাপের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এই পরীক্ষায় সফলতা পেলেই নিয়ন্ত্রকদের অনুমোদন পাবে ভ্যাকসিনটি।

সিনোফার্মের চেয়ারম্যান লিউ জিংজেন দৈনিক পত্রিকা গুয়াংমিংকে বলেন, ‘এর দাম খুব বেশি হবে না। একটি ডোজের দাম হবে মাত্র কয়েকশ’ ইয়েন আর দুই ডোজের দাম হবে এক হাজার ইয়েনেরও কম।’

করোনাভাইরাসের কার্যকর ও নিরাপদ ভ্যাকসিন উদ্ভাবনের প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন দেশের সরকার এবং ওষুধ প্রস্তুতকারকেরা। দুইশ’রও বেশি সম্ভাব্য ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। এরমধ্যে অন্তত ২০টি রয়েছে মানুষের ওপর পরীক্ষার পর্যায়ে।

মার্কিন প্রস্তুতকারক মডার্না জানিয়েছে, তাদের উদ্ভাবিত সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটির প্রতি ডোজের মূল্য পড়বে ৩২ থেকে ৩৭ মার্কিন ডলার

Check Also

করোনা ভাইরাস: টাকা, মোবাইল স্ক্রিন এবং স্টিলে ২৮ দিন পর্যন্ত থাকতে পারে, বলছে গবেষণা

করোনাভাইরাস ২৮ দিন পর্যন্ত ব্যাংক নোট, মোবাইল ফোনের স্ক্রিন এবং স্টেইনলেস স্টিলের মতো পৃষ্ঠগুলোতে থাকতে …