মাস্ক ব্যবহারের কারণে গলা ব্যথায় ভুগছেন?

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে এখন পর্যন্ত সম্ভাব্য প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হলো মাস্ক ব্যবহার করা। মাস্ক ব্যবহারের ফলে বাতাসে ছড়িয়ে থাকা ভাইরাস শ্বাসযন্ত্রে প্রবেশ করতে এবং সংক্রমণ ঘটাতে বাধা পায়।

বেশ কয়েকটি গবেষণায বলছে যে ,মাস্ক পরলে সংক্রমণের ঝুঁকি ৫০ শতাংশ কমতে পারে। এজন্য বাইরে বের হওয়ার আগে মাস্ক ব্যবহার করার নির্দেশ দেয়া হয়। দীর্ঘসময় মাস্ক পরে থাকার কারণে অনেকেই বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। যেমন- মুখে ব্রণ, অস্থিরতা, ভেজা চশমা ইত্যাদি।

মাস্ক পরার ক্ষেত্রে নতুন যে সমস্যাটি দেখা দিয়েছে তা হলো গলা ব্যথা। এর পেছনে কী কারণ রয়েছে তা প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

মাস্ক এবং গলা ব্যথা
আমরা সবাই জানি যে, স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখতে আমাদের নিজেদের এবং চারপাশকে পরিষ্কার রাখতে হবে। জীবাণু এবং ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে আমাদের সবারই উচিত নিয়মিত মাস্ক ধুয়ে ব্যবহার করা। কেননা মাস্কে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস, ধূলিকণা এবং অ্যালার্জেন গলা ব্যথার মূল কারণ হতে পারে।

আপনি যখন দীর্ঘদিন মাস্ক না ধুয়ে ব্যবহার করবেন তখন এসব ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া মাস্কের ভেতর বাসা বাঁধে। এবং এগুলো গলায় প্রবেশ করে জ্বালা-যন্ত্রণার সৃষ্টি করে। দুর্বল ইমিউনিটি এবং ডাস্ট অ্যালার্জি আক্রান্ত ব্যক্তিদের মাঝে এই ঝুঁকি বেশি রয়েছে।

গলা ব্যথার অন্য কারণ হতে পারে, মাস্ক পরে থাকার জন্য মানুষকে কিছুটা জোরে কথা বলতে হয় যাতে অপরজন শুনতে পারে, যার ফলে গলায় চাপ পড়ে এবং ব্যথার সৃষ্টি হয়।

প্রতিকারের উপায়
হাত ধোয়ার মতো মাস্ক ধোয়াও সমান গুরুত্বপূর্ণ। প্রত্যেকবার ব্যবহারের পর গরম পানি এবং সাবান দিয়ে মাস্ক ধুয়ে নিতে হবে।পরার আগে এটিকে রোদে শুকাতে হবে।

সুবিধার জন্য দু’টি মাস্ক রাখার পরামর্শ দেয়া হয় যাতে আপনি সেগুলো বিকল্পভাবে ব্যবহার করতে পারেন। যতটা সম্ভব মাস্ক স্পর্শ করা এড়িয়ে চলুন। মাস্ক পরার আগে এবং পরে আপনার হাতটি সঠিকভাবে ধুয়ে নিন।

Check Also

জ্বর সারানোর ঘরোয়া উপায়

হুটহাট জ্বর চলে আসা এই সময়ে অস্বাভাবিক নয়। বাতাসে ঋতু বদলের ঘ্রাণ। প্রকৃতির পরিবর্তনের সঙ্গে …