লিভার পরিষ্কার রাখতে যা খাবেন

প্রতি বছর লিভারের অসুখের কারণে মৃত্যুর সংখ্যা কম নয়। লিভারের প্রধান কাজ হলো শরীর থেকে সমস্ত বর্জ্য পণ্য সরিয়ে ফেলা, তাই লিভার ভালো রাখার জন্য আরও বেশি যত্নশীল হওয়া জরুরি। এর কাজের মধ্যে রয়েছে ফ্যাট নিয়ন্ত্রণ, রক্তে কার্বস নিয়ন্ত্রণ, রক্ত থেকে বিষাক্ত পদার্থ সরিয়ে দেয়া, এনজাইম সক্রিয় করা। এখানে কিছু খাবার যা লিভারের ডিটক্সিফিকেশনকে সমর্থন করতে পারে। কিছু খাবার রয়েছে যা আপনার লিভার পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করবে। বিস্তারিত প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া-

ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার
প্রতিদিনের খাবারে ফাইবার রাখা লিভারের স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। ফাইবার যকৃতে জমা হওয়া চিনির স্তর হ্রাস করতে সাহায্য করে। আপনার প্রতিদিনের খাবারে আস্ত দানা যেমন বার্লি, ওটমিল এবং আস্ত গম রাখুন। পুরো শস্য ছাড়াও, আপনার ডায়েটে ফল এবং শাকসবজি রাখুন, যা লিভারের জন্য উপকারী। আপেল, বিটরুট এবং গাজর এবং এজাতীয় আরও কিছু খাবার শরীর থেকে ক্ষতিকারক টক্সিন অপসারণে সহায়তা করতে পারে।

গ্রিন টি
গ্রিন টি পান করার ফলে অনেকগুলো স্বাস্থ্য উপকার হয়, বিশেষত ওজন হ্রাস করার জন্য। তবে গ্রিন টি লিভার থেকে ফ্যাট নির্মূল করতেও সহায়তা করে। এতে থাকা ক্যাটচিন নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট লিভার থেকে জমে থাকা ফ্যাট সরিয়ে দেয়। এটি লিভারের কার্যকারিতাও উন্নত করে। গ্রিন টির দুর্দান্ত উপকারিতা দেখতে প্রতিদিন এককাপ গ্রিন টি পান করুন।

সাইট্রাস ফল
প্রচুর ফল রয়েছে যা লিভার পরিষ্কার করতে সহায়তা করতে পারে। সাইট্রাস ফলের মধ্যে ভিটামিন সি প্রচুর পরিমাণে থাকে যা ডিটক্সাইফাইং এনজাইমগুলোকে উৎসাহ দেয়। আপেল, আঙ্গুর, আভোকাডোসহ বিভিন্ন সাইট্রাস ফল রাখুন খাবারের তালিকায়।

আখরোট
আখরোট ওমেগা -৩ ফ্যাটি অ্যাসিড এবং অ্যামাইনো অ্যাসিডযুক্ত। এগুলোতে অর্জিনাইন রয়েছে, যা লিভারকে পরিষ্কার করে। ওমেগা -৩ ডিটক্সিফিকেশনে সহায়তা করে।

সবুজ শাকসবজি
প্রতিদিন সবুজ শাকসবজি খাওয়া আমাদের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য দুর্দান্ত। সবুজ শাকসবজির মধ্যে ক্লিয়ারিং যৌগ রয়েছে যা লিভার থেকে টক্সিন পরিষ্কার করতে সহায়তা করে। সবুজ রস পান করলে বা সবুজ সালাদ খেলে তা শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করতে সহায়তা করে। কিছু সাধারণ সবুজ শাকসবজির মধ্যে রয়েছে ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রকলি এবং পালং শাক।

হলুদ এবং রসুন
রসুন এবং হলুদ জাতীয় মশলা সাধারণত আমাদের রান্নাঘরে ব্যবহৃত হয়। এগুলো লিভারের জন্য দুর্দান্ত। রসুনে সালফার যৌগ রয়েছে, যা লিভার ভালো রাখে এবং এনজাইমসক্রিয় করে বিষাক্ত পদার্থ বের করে। হলুদে কারকুমিন রয়েছে যা টক্সিন বের করতে সহায়তা করে। এটি লিভারের কোষগ মেরামত করতে এবং লিভারের স্বাস্থ্যকর কোষ পুনরায় জন্মাতে সাহায্য করে।

এই সমস্ত খাবারের অসংখ্য স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে। আপনি যদি অসুখে ভুগে থাকেন বা চিকিৎসাধীন থাকেন তবে এগুলো খাওয়ার আগে আপনার অবশ্যই চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেয়া উচিত।

Check Also

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় যে ৫ সবজি এড়িয়ে চলবেন

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা নানা কারণে হতে পারে। ধরুন আপনি খাবার খেয়েই ঘুমিয়ে গেলেন, কিংবা মদ্যপান-ধূমপানের অভ্যাস …